• ঢাকা
  • সোমবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১,

শুভ্র দেব সত্য গোপন করেছেন: প্রিন্স মাহমুদ


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৪, ০২:৩৪ পিএম
শুভ্র দেব সত্য গোপন করেছেন: প্রিন্স মাহমুদ
প্রিন্স মাহমুদ ,শুভ্র দেব: ছবি: কোলাজ

সংগীতশিল্পী শুভ্র দেবের একুশে পদকপ্রাপ্তির খবর প্রকাশের পর প্রিন্স মাহমুদ সম্পতি ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেই পোস্টের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা জবাব দেন শুভ্র দেব। সেই জবাবে প্রিন্স মাহমুদ প্রসঙ্গে শুভ্র দেব সরাসরি বলেন, ‘তিনি (প্রিন্স মাহমুদ) তো আমার গানের জন্য বাসায় এসে বসে থাকতেন। কদিন আগেও তিনি আমাকে গানের জন্য ফোন করেছেন।’ শুভ্র দেবের এমন বক্তব্যের পর বুধবার বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে আবার পোস্ট দিয়েছেন প্রিন্স মাহমুদ। সেখানে তিনি শুভ্র দেবের এমন দাবিকে অসত্য বলে জানান।

শুভ্র দেব তার বক্তব্যে বলেছিলেন, ‘প্রিন্স মাহমুদ ক্যারিয়ারের দিক থেকে আমার অনেক জুনিয়র। ও (প্রিন্স মাহমুদ) আমার পল্লবীর বাসায় এসে বসে থাকত আমাকে দিয়ে গাওয়ানোর জন্য। ও একটা মিক্সড অ্যালবামে গান করার জন্য অনেক দিন গিয়ে বসে ছিল। আমি মিক্সড অ্যালবামে গান করব না। কারণ, তখন সলো অ্যালবামে আমি সবচেয়ে বেশি টাকা নিতাম। তারপরও আমার খারাপ লাগল, অনেক ইয়াং একটা ছেলে।’

তবে ফেসবুকে প্রিন্স মাহমুদ লিখেছেন, তিনি শুভ্র দেবের পল্লবীর বাসা চিনতেন না। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ‘আমি অতি ক্ষুদ্র মানুষ। কিন্তু মিথ্যা বলি না। তিনি সত্য গোপন করছেন। কিছুদিন আগে কেন, আমি তাঁকে ২৫ বছরে ফোন করি নাই।

ভদ্রলোকের বাসা যে পল্লবী, এটা জানতাম না। সব সময় আমি সবার থেকে দূরে থাকতে পছন্দ করি। অতি নিকটজন না হলে আড্ডায় বসি না, কোথাও গিয়ে বসে থাকা তো দূর। পুরোনো দিনে গানের যোগাযোগ সব স্টুডিওতে হতো। কাজ শেষ হলে এক মুহূর্ত স্টুডিওতে আড্ডা দিই নাই...।’

নিজের পোস্টের মন্তব্যের ঘরে প্রিন্স মাহমুদ আরও লিখেছেন, ‘আমার কাছে সব শিল্পী এক। সংগীতের শপথ, আমার কারও ওপর কোনো রাগ নাই। আমি শুধু দু–একটা অসংগতি–অনিয়ম নিয়ে কথা বলেছি। ভুল হলে ক্ষমা করবেন।’

চলতি বছর সংগীতে একুশে পদক পেয়েছেন এন্ড্রু কিশোর (মরণোত্তর) ও শুভ্র দেব। (২০ জানুয়ারি) মঙ্গলবার ‘একুশে পদক ২০২৪’-এর মনোনীত ব্যক্তিদের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবারের একুশে পদক যেদিন ঘোষণা করা হয়, সেদিন গীতিকবি ও সুরকার প্রিন্স মাহমুদ ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেখানে তিনি লেখেন, ‘প্রিয় শুভ্র দেবের উচিত এই প্রসঙ্গে কথা বলা। নিজে পদক না গ্রহণ করে সত্যিকার মেধাবীকে পদক দিতে বলার এই সংস্কৃতি এখনই শুরু হোক।’

প্রিন্স মাহমুদের দেওয়া পোস্টটি ছিল এ রকম, ‘দেশের সংগীতে শুভ্র দেবের অবদান আছে। কিন্তু তার চেয়ে অনেক বেশি অবদান লাকী আখান্দ্‌, আইয়ুব বাচ্চু, ফুয়াদ নাসের বাবু, নকীব খান, কুমার বিশ্বজিৎ, তপন চৌধুরী, হামিন আহমেদ, মাকসুদুল হক, মাহফুজ আনাম জেমস এবং প্রিয় গীতিকবি কাওসার আহমেদ চৌধুরী ও শহীদ মাহমুদ জঙ্গির। প্রিয় শুভ্র দেবের উচিত এই প্রসঙ্গে কথা বলা। নিজে পদক না গ্রহণ করে সত্যিকার মেধাবীকে পদক দিতে বলার এই সংস্কৃতি এখনই শুরু হোক...।’

প্রিন্স মাহমুদের এমন কথাকে একেবারে আমলে নেননি শুভ্র দেব। তিনি পাল্টা বলেছেন, ‘আজকে যদি সৈয়দ আব্দুল হাদী, রুনা লায়লার মতো শিল্পীরা কিছু বলতেন, তাহলে হয়তো আমি ভাবতাম। জুনিয়ররা অনেকে অনেক কিছু বলে ফেলে, আমি এগুলো ক্ষমাসুন্দর চোখে দেখি। আমার মনে হয়, তিনি কারও ইন্ধনে এমন কথা বলেছেন। নইলে এমন কথা কীভাবে তিনি বলেন! যাঁরা সমালোচনা করছেন, তাঁরা তো আমার লেভেলের (সমসাময়িক) না। তিনি (প্রিন্স মাহমুদ) তো আমার গানের জন্য বাসায় এসে বসে থাকতেন। কদিন আগেও তিনি আমাকে গানের জন্য ফোন করেছেন।’

 

 

Link copied!