• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ১১ শা’বান ১৪৪৫

সাঈদীকে নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট, ছাত্রলীগের ২৮ নেতাকর্মী বহিষ্কার


পাবনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ২১, ২০২৩, ০৪:০৭ পিএম
সাঈদীকে নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট, ছাত্রলীগের ২৮ নেতাকর্মী বহিষ্কার

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আমৃত্যু সাজাপ্রাপ্ত আসামি দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস ও মন্তব্য করায় পাবনায় ছাত্রলীগের ২৮ নেতাকর্মীকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

সোমবার (২১ আগস্ট) জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান সবুজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) এক বিজ্ঞপ্তিতে ১১ জন ও রোববার (২০ আগস্ট) ১৭ জন নেতা-কর্মীকে বহিষ্কার করা হয়।

দ্বিতীয় দফায় সাময়িক বহিষ্কৃতরা হলেন জেলার ফরিদপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজিবুল ইসলাম, চাটমোহরের পার্শ্বডাঙ্গা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক লিটন খান, উপক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক রুবেল খান, ভাঙ্গুড়া উপজেলার খান মরিচ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কর্মী রাকিবুল ইসলাম, ঈশ্বরদীর সাহাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রুবেল হোসেন, ৮ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জয় মালিথা, চাটমোহর ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের কর্মী প্রান্ত হোসেন, ঈশ্বরদী পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান, ঈশ্বরদী উপজেলা ছাত্রলীগের কর্মী মাহমুদুল হাসান শোয়েব, ফরিদপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক হাবিবুল্লাহ রহমান হাসিবুল, ফরিদপুর উপজেলার বিএলবাড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কর্মী তরিকুল ইসলাম জীবন, বেড়া উপজেলা ছাত্রলীগের কর্মী হৃদয় রানা, সবুজ সরদার, সুরুজ সরদার, নাজমুল ইসলাম, সাঁথিয়া উপজেলার নন্দনপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুমন হোসেন ও গৌরীগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহসভাপতি হিমেল বিশ্বাস।

এ বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান বলেন, “দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী যুদ্ধাপরাধী ও একাত্তরে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন। তার মৃত্যুতে ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মী শোক জানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেন। বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া ছাত্রলীগের কর্মীদের যুদ্ধাপরাধীর পক্ষে শোক জানানো খুবই দুঃখজনক। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পরামর্শে এই ২৮ জনকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। পাশাপাশি স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। এ জেলায় আরও কোনো নেতাকর্মীর এমন পোস্ট আমাদের নজরে আসলে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।” 

Link copied!