• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১,

লক্ষ্মীপুরে লকডাউন উপেক্ষা করে রাস্তায় বের হচ্ছে মানুষ


লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: জুলাই ২৫, ২০২১, ০২:৪৩ পিএম
লক্ষ্মীপুরে লকডাউন উপেক্ষা করে রাস্তায় বের হচ্ছে মানুষ

লক্ষ্মীপুরে লকডাউন উপেক্ষা করে মাস্ক ছাড়াই মানুষজন বিভিন্ন অজুহাতে রাস্তায় বের হচ্ছেন। করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত লকডাউনের কারণে লক্ষ্মীপুরে মার্কেট, শপিংমল, দোকানপাটসহ সরকারি-বেসরকারি অফিস রয়েছে বন্ধ। 

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি ঠেকাতে নতুন করে শুরু হওয়া লকডাউনের প্রথম দিন লক্ষ্মীপুরে কঠোরভাবে পালিত হলেও শনিবার ও রোববার সকাল থেকে সাধারণ মানুষকে বিভিন্ন অজুহাতে মাস্ক ছাড়াই রাস্তায় বের হতে দেখা গেছে। প্রতিদিন সকাল থেকে মোটরসাইকেল, রিকশা ও অটোরিকশা চলাচল করতে দেখা গেছে শহরের প্রতিটি রাস্তায়।

শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপস্থিতি কম থাকায় এ সকল যানবাহন অবাধে চলাচল করছে বলে লক্ষ্য করা গেছে। এতে করে জেলায় করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তবে শহরের প্রধান সড়কগুলোতে পুলিশ, বিজিবি, সেনাবাহিনী ও র‌্যাবের টহল দেখা গেছে। 

এ দিকে চলমান কঠোর লকডাউন উপেক্ষা করে প্রতিদিন লক্ষ্মীপুরের বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রে ঢল নামছে মানুষের। সদর উপজেলার টুমচর ইউনিয়নের ইলির গোঁজা, রায়পুর উপজেলার আলতাফ মাস্টারের মাছ ঘাট ও মিয়ার হাট এলাকার রাহুল মাছ ঘাটসহ বিভিন্ন পর্যটন এলাকায় মানুষের উপস্থিতি দেখে বোঝার উপায় নেই যে দেশে চলছে কঠোর লকডাউন। 

লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে আরোপিত বিধিনিষেধ বাস্তবায়ন নিশ্চিত করণের লক্ষ্যে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দের নির্দেশনা অনুযায়ী জেলার পাঁচটি উপজেলায় কাজ করছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এ সময় ১৬টি অভিযানে ৬৬টি মামলায় ৬৭,৩০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করা হয়। অভিযানে পুলিশ, সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিল। লকডাউনের নির্দেশনা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে। করোনা সংক্রমণ রোধে শুরু হওয়া দুই সপ্তাহব্যাপী লকডাউনের শেষ পর্যন্ত কঠোর অবস্থানে থাকবে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসন। 

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলার ৫টি উপজেলায় ২৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে ১০৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৪১, রামগঞ্জ উপজেলায় ৪১ ও রায়পুর উপজেলায় ২১ জন। এ ছাড়া জেলায় একজন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। 

 
 

Link copied!