• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

‘গ্রেনেড হামলার মূল খুনির বিচার এখনো হয়নি’


শেরপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ২১, ২০২১, ০১:১১ পিএম
‘গ্রেনেড হামলার মূল খুনির বিচার এখনো হয়নি’

তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, “খালেদা জিয়া আর তারেক জিয়ার নেতৃত্বেই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা হয়েছে। কিন্তু মূল খুনির বিচার এখনো হয়নি।”

শুক্রবার (২০ আগস্ট) শেরপুর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তার প্রণোদনার চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, “যুদ্ধাপরাধের বিচার হয়েছে, জাতীয় চার নেতা হত্যাকাণ্ডের বিচারকাজ চলমান। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা খালেদা আর তারেক জিয়ার নেতৃত্বেই হয়েছে। এর বিচার কাজও চলমান। কিন্তু মূল খুনির বিচার এখনো হয়নি।”

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, “আমাদের পাশ্ববর্তী দেশ ভারতের ইন্দিরা গান্ধী, মহাত্মা গান্ধী ও রাজীব গান্ধী আততায়ীর গুলিতে নিহত হয়েছেন। কিন্তু তাদের বংশকে নির্বংশ করা হয়নি। কাপুরুষ জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুকে সপরিবার নির্মমভাবে হত্যা করেছে।”

আক্ষেপ প্রকাশ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “তার (জিয়াউর রহমান) উদ্দেশ্য ছিল- এই রক্ত কোন দিন যেন বাংলার মাটিতে মাথা তুলে দাঁড়াতে না পারে। কেউ জয় বাংলা বলতে না পারে, বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ উচ্চারণ করতে না পারে। এছাড়া ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্ববাসী যেন জানতে না পারে।" 

মুরাদ হাসান বলেন, “আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা এই খুনির মরণোত্তর বিচার বাংলার মাটিতে দেখতে চাই। আর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে সরকার। এর জন্য রাষ্ট্রপতি, নির্বাহী প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বিচার বিভাগ ও এই রাষ্ট্রের সংবিধান আছে। আমি এই খুনির বিচার চাই।”  
 
জাতির পিতার হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড ছিলেন জিয়াউর রহমান উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, “এই খুনির মুখোশ আমাদের সন্তানদের সামনে উন্মোচন করতেই হবে। বেগম খালেদা জিয়া কে, তার স্বামী কে, তাকে হত্যা (জিয়াউর রহমান) করা হলো আর উনি (খালেদা জিয়া) পাশের রুমে ঘুমালেন মহা আনন্দে, মহা আরামে। আর খালেদা জিয়া হঠাৎ করে হয়ে গেলেন প্রধানমন্ত্রী। জিয়া হত্যাকাণ্ডেরও প্রধান কুশীলব খালেদা।”

খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, “এফডিসির নাইকা হওয়ার কথা, হয়ে গেলেন প্রধানমন্ত্রী। মেট্রিক ফেল, আট সাবজেক্টে ফেল দুই সাবজেক্টে পাস। পাস করলেন উর্দু আর অঙ্কে। হলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। ইতিহাস জানতে হবে আমাদের সন্তানদেরকে।”

ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সঠিক ইতিহাস জানানো প্রয়োজন উল্লেখ করে মুরাদ হাসান বলেন, “যারা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা, বঙ্গবন্ধু কন্যার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করছেন তাদের জানতে হবে। ইতিহাস না জানলে এ দেশ, জাতি ও রাষ্ট্র সঠিকভাবে পরিচালিত হবে না।”

তালেবান প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “তালেবানরা আফগানিস্তান দখল নেওয়ায় পাকিস্তানিরা বেজায় খুশি। এ নিয়ে স্যোশাল মিডিয়ায় ঝড় বয়ে যাচ্ছে। আর এ দেশকে পাকিস্তান বানাতে যারা স্বপ্নে বিভোর ছিল তারাও খুশি। ওই সব উন্মাদনা স্যোশাল মিডিয়া পর্যন্তই সীমাবদ্ধ থাকবে।”

শেরপুর জেলা প্রশাসন ও  প্রেসক্লাব যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। জেলা প্রশাসক মোমিনুর রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন শেরপুর সদর আসনের এমপি ও হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিউর রহমান আতিক।
 
শেরপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পুলিশ সুপার হাসান নাহিদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট চন্দন কুমার পাল, পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সভাপতি শরিফুর রহমান।
 
এ দিন জেলার ৪৬ জন গণমাধ্যমকর্মীকে ১০ হাজার করে মোট ৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা প্রদান করেন ৫ উপজেলায় কর্মকর্তা।

Link copied!