• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ১১ শা’বান ১৪৪৫

ডিএসএল গ্রুপের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৩, ২০২৪, ০৭:৪৮ পিএম
ডিএসএল গ্রুপের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত
ডিএসএল গ্রুপের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শেষে মাঠে উল্লসিত খেলোয়াড়রা। ছবি : সংবাদ প্রকাশ

প্রখ্যাত পোষাকশিল্প প্রতিষ্ঠান ডিজাইন অ্যান্ড সোর্স লিমিটেডের (ডিএসএল) উদ্যোগে রাজধানীর মিরপুর পুলিশ স্টাফ কলেজে এক ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়।

শনিবার (১৩ জানুয়ারি) তিনটি দলের অংশগ্রহণে এই টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করা দলগুলো হলো, রয়েল টাইগার, লায়ন কিংস ও সুপার ঈগল।

তিন দলের অংশগ্রহণে এই টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ডের খেলায় বাদ পড়ে সুপার ঈগল। ফাইনাল খেলে রয়েল টাইগার ও লায়ন কিংস। ফাইনালে লায়ন কিংসকে হারিয়ে তৃতীয় বারের মতো শিরোপা ঘরে তুলে নেয় রয়েল টাইগার। 

রানার আপ ও বিজয়ী দলের হাতে পুরস্কার তুলে দেন ডিজাইন অ্যান্ড সোর্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান কাজী মাহযাবীন মমতাজ।

মাঠে হালকা কুয়াশা আর শীতের হিমশীতল বাতাসে তৈরি হওয়া কনকনে শীতেই চলে আনন্দঘন পরিবেশে এই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। তীব্র শীতকে উপেক্ষা করে টুর্নামেন্ট দেখতে ভিড় জমান আশ-পাশের লোকজন।

ডিএসএল গ্রুপের চেয়ারম্যানের হাত থেকে ট্রপি গ্রহণ করছেন বিজয়ী দল । ছবি : সংবাদ প্রকাশ

জানা গেছে, ডিজাইন অ্যান্ড সোর্স লিমিটেডের (ডিএসএল) কর্মরত কর্মীদের কাজের পাশাপাশি বিনোদনের মাধ্যমে কাজে অনুপ্রেরণা জোগাতে প্রতিবছর এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়। এবারের টুর্নামেন্টে বিজয়ী হয়ে তৃতীয়বারের মতো শিরোপা ঘরে তুলে নেয় রয়েল টাইগার।

টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন রকি। দ্বিতীয় ম্যাচের ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন কাজী যুবায়ের। তৃতীয় ও ফাইনাল ম্যাচের ম্যান অব দ্য ম্যাচের পাশাপাশি টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান করেন শোভন। এছাড়াও ৭ উইকেট পেয়ে বেস্ট বোলারের পুরস্কার পান সাকিব। বেস্ট ফিল্ডিংয়ের পুরস্কার পান কাজী যুবায়ের।

জানতে চাইলে ডিজাইন অ্যান্ড সোর্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান কাজী মাহযাবীন মমতাজ সংবাদ প্রকাশকে বলেন, “প্রতি বছর আমাদের ডিজাইন অ্যান্ড সোর্স কোম্পানি লিমিটেডের পক্ষ থেকে ক্রিকেট খেলার আয়োজন করা হয়। ছেলেরা টিম করে খেলায় অংশগ্রহণ করে। আমাদের কাছে এটা খুব ভালো লাগে। তিন দলের খেলায় এক দল বাদ পড়ে। দুই দল ফাইনাল খেলে। খেলা দেখতে বেশ ভালো দর্শকও এসেছেন।”

কাজী মাহযাবীন মমতাজ আরও বলেন, “স্বতঃস্ফূর্তভাবে ছেলেরা মাঠে খেলতে এসেছে। খেলাকে তারা কাজের অংশ হিসেবে নিয়েই ওরা ভাবে যে খেলাধুলা করলে কর্মক্ষেত্রে আরও বেশি অনুপ্রেরণা জোগাবে।”

Link copied!