• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

পাকিস্তানে ‘মোনাজাতে ধর্ম অবমাননার’ অভিযোগে পিটিয়ে হত্যা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মে ৮, ২০২৩, ১১:৫১ এএম
পাকিস্তানে ‘মোনাজাতে ধর্ম অবমাননার’ অভিযোগে পিটিয়ে হত্যা

পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ খাইবার পাখতুনখোয়ায় বিরোধী দলের রাজনৈতিক সমাবেশে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে স্থানীয় মুসলিম ধর্মীয় নেতা নিগার আলমকে উত্তেজিত জনতারা পিটিয়ে হত্যা করেছে। দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সমাবেশে শনিবার (৬ মে) এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে। এতে বলা হয়, মারদান জেলার সাওয়ালধার গ্রামে পিটিআই দল আয়োজিত এক সমাবেশে প্রার্থনা করতে বলা হয়েছিল ওই ধর্মীয় নেতা নিগারকে।

একজন স্থানীয় কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, প্রার্থনার সময় কিছু নিন্দামূলক মন্তব্য করার পর উত্তেজিত জনতার হাতে নিহত হন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, তারা প্রথমে নিগার আলমকে পাশের একটি দোকানে নিরাপদে নিয়ে আসতে সক্ষম হয়। কিন্তু উত্তেজিত জনতা দরজা ভেঙে তাকে জোর করে টেনে বের করে নিয়ে লাঠিপেটা করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। যেখানে ওই ব্যক্তিকে উত্তেজিত জনতার মারধরের হাত থেকে রক্ষার জন্য চেষ্টা করতে দেখা যায় পুলিশকে।

আলমের মরদেহ পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে এবং তদন্ত চলছে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

শনিবার আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় রক্ষণশীল খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের মারদান শহরের সাওয়াল ধের এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের মরদেহ পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে এবং তদন্ত চলছে।

মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ পাকিস্তানে ব্লাসফেমি বা ধর্ম অবমাননা অত্যন্ত সংবেদনশীল বিষয়। দেশটিতে এ সংক্রান্ত একটি সামান্য অভিযোগও উঠলে জনতারা সহিংসতায় জড়িয়ে পড়তে পারে। এর আগে ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় শহর লাহোরের পুলিশ স্টেশন থেকে একটি বিক্ষুব্ধ জনতা ব্লাসফেমির অভিযোগে অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে ছিনিয়ে নিয়ে হত্যা করেছিল।

এছাড়া ২০২১ সালের ডিসেম্বরে পাকিস্তানের একটি কারখানার ব্যবস্থাপক হিসাবে কর্মরত একজন শ্রীলঙ্কান নাগরিককে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে বিক্ষুব্ধ জনতা পিটিয়ে এবং আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেছিল।

Link copied!