• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১, ১১ মুহররম ১৪৪৫

সাংবাদিককে মারধর: মূল হোতাকে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি


ফরিদপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ৩, ২০২২, ০৩:৫৬ পিএম
সাংবাদিককে মারধর: মূল হোতাকে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দৈনিক ঢাকা টাইমস পত্রিকার নিজস্ব প্রতিবেদক মুজাহিদুল ইসলাম নাঈমকে পেটানোর সঙ্গে জড়িত মূল হোতাকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিকরা।

বুধবার (৩ আগস্ট) বেলা ১১টায় উপজেলা প্রেসক্লাব চত্বরে ঘণ্টাব্যাপী একটি মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে এ দাবি তোলা হয়। মানববন্ধনে আলফাডাঙ্গা ও বোয়ালমারী উপজেলার কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মী অংশ নেন।

মানববন্ধনে আলফাডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. সেকেন্দার আলমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলমগীর কবীরের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন প্রেসক্লাব বোয়ালমারীর সভাপতি অ্যাড. কোরবান আলী, আলফাডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি খান আসাদুজ্জামান টুনু, দৈনিক ঢাকা টাইমস পত্রিকার বোয়ালমারী প্রতিনিধি আমীর চারু বাবলু ও সাংবাদিক মুজাহিদের বাবা মাওলানা আবু বকর সিদ্দিক প্রমুখ।

সোমবার (১ আগস্ট) দুপুরে মুজাহিদকে বেধড়ক মারধর করা হয়। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) সকালে সাংবাদিক মুজাহিদুল ইসলাম নাঈম নিজেই বাদী হয়ে আলফাডাঙ্গা থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় আলফাডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র সাইফুর রহমানের আপন ছোট ভাই জাপান মোল্যা (৪৫) ও উপজেলার বুড়াইচ এলাকার শাহাদাৎ হোসেনের স্ত্রী পারুল বেগম (৫০) নামে এক নারীকে এজাহারভুক্ত আসামি করা হয়। এছাড়াও মামলায় অজ্ঞাত আরও ৪-৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। পরবর্তীতে মামলার এজাহারভুক্ত আসামি পারুল বেগমকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে আদালতে হাজির করেন। আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন। এদিকে মামলার প্রধান আসামি জাপান মোল্যা বর্তমান পলাতক রয়েছেন।

আলফাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ওয়াহিদুজ্জামান জানান, সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় দ্বিতীয় এজাহারভুক্ত আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

Link copied!