• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

রাজবাড়ীর তৈরি কারুশিল্প রপ্তানি হচ্ছে আমেরিকায়


রাজবাড়ী প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ২৯, ২০২১, ১১:৩২ এএম
রাজবাড়ীর তৈরি কারুশিল্প রপ্তানি হচ্ছে আমেরিকায়

রাজবাড়ী পৌর এলাকায় ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মো. ইমদাদ ইসলাম। একসময় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন। চাকরিজীবন শেষে যখন বেকার হয়ে পড়েন তখন অভাবে দিন কাটতে থাকে তার। অভাব থেকে কীভাবে মুক্তি পাওয়া যায়, সেই উপায় খুঁজতে বেছেন নেন কারুশিল্প। বর্তমানে তার তৈরি এই কারুশিল্প দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে রপ্তানি হচ্ছে আমেরিকাতে।

মো. ইমদাদ কুষ্টিয়া অয়েল মিল থেকে নারকেলের খোলা (মালই) জোগাড় করা শুরু করেন। তারপর সেই নারকেলের খোলা বিভিন্ন রকমভাবে কেটে এবং নকশা করে বাজারের বিক্রি করন। প্রথম দিকে সাড়া না পেলেও বর্তমানে তার তৈরি এসব পণ্যের চাহিদা রয়েছে বেশ।

এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপ কালে মো. ইমদাদ জানান, ১০ বছর ধরে তিনি এই কাজ করে আসছেন। নারকেলের খোলা দিয়ে বর্তমানে তিনি আড়াই শতাধিকের বেশি পণ্য তৈরি করেন। যার মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন শোপিস, টেবিল ল্যাম্প, বৈদ্যুতিক লাইট দিয়ে জ্বালানো হারিকেন, ঝাড়বাতিসহ নানান পণ্য।

মো. ইমদাদ আরও জানান, এসব পণ্য তিনি নিজ হাতে তৈরি করেন। শুধু রাজবাড়ীর গোদার বাজার এলাকায় প্রতি শুক্রবার তিনি এসব পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেন। এছাড়া সারা দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পাইকাররা এসে এসব পণ্য তার কাছ থেকে কিনে নিয়ে যান। মাসে তার প্রায় লক্ষাধিক টাকার বিক্রি হয় বলে জানান তিনি।

শুক্রবার রাজবাড়ী গোদারবাজার এলাকায় গিয়ে দেখা যায় তার তৈরি পণ্য কিনতে মানুষের ভিড়। এ সময় কথা হয় স্কুল শিক্ষক আব্দুল বারেক মন্ডলের সঙ্গে। তিনি একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। এর আগেও তিনি ইমদাদের কাছ থেকে একটি শোপিস কিনেছেন। একটি টেবিল ল্যাম্প কিনতে এসেছেন এখন।

আরেক ক্রেতা মুনিয়া ইসলাম জানান, তার এসব কারুশিল্পের প্রতি আগ্রহ রয়েছে। তাই তিনি যেখানেই যান এই কারুশিল্পের কেন পণ্য পেলে সংগ্রহ করেন। একটি নৌকা দেখে তার পছন্দ হয়েছে। তাই তিনি সেটি কিনছেন।

স্থানীয় সাংস্কৃতিক কর্মী নেহাল আহমেদ বলেন, “এই শিল্প আমাদের জেলার জন্য অহংকার হতে পারে। জেলার সীমানা ছাড়িয়ে সারা দেশ এবং দেশের গণ্ডি পেরিয়ে এটি এখন বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে। সরকার এবং প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ থাকবে এই শিল্পের মানোন্নয়নে যেন সুদৃষ্টি প্রদান করেন।”

Link copied!