• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৬ জুলাই, ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৯ মুহররম ১৪৪৫

ছিনতাইকারী শাকিলের টার্গেট টিনএজার নারী


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৪, ২০২২, ০১:১৮ পিএম
ছিনতাইকারী শাকিলের টার্গেট টিনএজার নারী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অপহরণ ও ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত মূল আসামি শাকিল আহমেদ রুবেলসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাতে তদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এ সময় সময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত ১টি বিদেশি পিস্তল, ২ রাউন্ড গুলি, ১টি ম্যাগাজিন, ১টি ওয়্যারলেস সেট, ২টি পুলিশ স্টিকারযুক্ত মোটরসাইকেল ও ৬টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় রাজধানীর ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ডিবির প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

গ্রেপ্তাররা হলেন মূল আসামি মো. শাকিল আহম্মেদ রুবেল (২৮),  সহযোগী মো. আকাশ শেখ (২২),  দেলোয়ার হোসেন (৫৫) ও  মো. হাবিবুর রহমান (৩৫)।

হারুন অর রশীদ জানান, পুলিশ পরিচয়ে সারা দেশে দেড় হাজারেরও বেশি ছিনতাই করেছেন শাকিল আহমেদ রুবেল। এ সময় তিনি ধর্ষণ করেছেন অর্ধশতেরও বেশি। দীর্ঘদিন শাকিল এভাবে ছিনতাই করে আসছিল। তিনি যখন ছিনতাই করে তখন পুলিশের স্টিকারযুক্ত মোটরসাইকেল ব্যবহার করেন। সঙ্গে থাকে পিস্তল ও ওয়্যারলেস সেট। ছিনতাইয়ে তার মূল টার্গেট টিনএজার নারী।

ডিবির প্রধান আরও বলেন, শকিলের ঢাকাতে কোনো নিজস্ব বাসা নেই। একেকদিন একেক হোটেলে তিনি থাকেন। তার নেশা আর পেশা হচ্ছে ছিনতাই ও অশালীন আচরণ করা। একদিকে শাকিল মোটরসাইকেল ছিনতাই করেন, অন্যদিকে ছিনতাইকৃত মোটরসাইকেল দিয়ে নিজে ছিনতাই করেন। এর আগেও একাধিকবার জেল খেটেছেন এবং তার বিরুদ্ধে ৬টি দস্যুতার মামলা রয়েছে।

ডিবির এই কর্মকর্তা জানান, গ্রেপ্তাররা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী অপহরণ, ছিনতাই ও নিপীড়নের ঘটনা স্বীকার করেছেন। তারা সারা দেশে এ পর্যন্ত প্রায় দেড় হাজারের অধিক ছিনতাই করেছেন। তাদের নামে সারা দেশে একাধিক দস্যুতার মামলা আছে। গ্রেপ্তারদের রিমান্ডে নিয়ে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

Link copied!