• ঢাকা
  • সোমবার, ২০ মে, ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

বারবার অ্যালার্মেও ঘুম ভাঙে না? জেনে নিন সমাধান


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মে ২৩, ২০২৩, ১২:৪৭ পিএম
বারবার অ্যালার্মেও ঘুম ভাঙে না? জেনে নিন সমাধান

প্রতিদিন ফোনে অ্যালার্ম সেট করে তবেই ঘুমোতে যান বেশিরভাগ মানুষ। কিন্তু দেখা যায় সে অ্যালার্ম বেজে বেজে বন্ধও হয়ে যায়, কিন্তু ঘুম আর কাটে না। ফলে অনেক সময়ই ঘুম থেকে উঠতে দেরি হেয় যায়। এ বিষয়ে চিকিৎসকেরা বলছেন, এমন অভ্যাস চলতে থাকলে তা শরীরের জন্য মোটেও ভালো নয়। শারীরবৃত্তীয় নানা কাজের ওপর প্রভাব ফেলতে পারে। তাই সকালে অ্যালার্ম বাজার সঙ্গে সঙ্গেই যাতে ঘুম ভেঙে যায়, তার জন্য কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখা জরুরি।

একাধিক অ্যালার্ম সেট নয়

রাতে শোয়ার আগে ফোনে একটার পর একটা অ্যালার্ম ‘স্নুজ’ করে রাখার অভ্যাস অনেকেরই আছ‌ে। ফলে ঘুম ভাঙলেই একটার পর একটা অ্যালার্ম বন্ধ করতে হয়। চিকিৎসকেরা জানাচ্ছেন, যদি কেউ জোর করে ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করেন, সে ক্ষেত্রে তার প্রভাব পড়ে ‘সার্কাডিয়ান ক্লক’ অর্থাৎ শারীরবৃত্তীয় ঘড়িতে। ঘুমের একটি নির্দিষ্ট চক্র রয়েছে। একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের ৭-৮ ঘণ্টা ঘুমোনো প্রয়োজন। রাত করে ঘুমিয়ে অনেকেই সকাল সকাল ওঠেন। ফলে ঘুমের চক্র অসম্পূর্ণ থেকে যায়। এতে শরীরের কার্যক্ষমতা অনেক কমে যায়। তাই এক বারের বেশি অ্যালার্ম নয়।

ফোন থেকে দূরে থাকতে হবে

ফোনে অ্যালার্ম সেট করে অনেকেই বালিশের নিচে রেখে দেন। সকালে অ্যালার্ম বাজার সঙ্গে সঙ্গেই আমাদের চোখ চলে যায় ফোনের দিকে। অ্যালার্ম বন্ধ করে ঘুম চোখেই সমাজমাধ্যমে উঁকিঝুঁকি দেওয়ার অভ্যাস যে ভালো নয়, তা-ও জানেন অনেকে। কিন্তু সেই অভ্যাস থেকে বিরত থাকতে পারেন না। চিকিৎসকেরা বলছেন, ঘুমের সময় ফোন হাতে কাছে ফোন না রাখাই ভালো। পারলে ফোন বন্ধ করে রাখুন।

ঘড়ি ব্যবহার করা

অ্যালার্ম যদি দিতেই হয়, তার জন্য বাজারে নানা রকম ঘড়ি পাওয়া যায়। প্রয়োজন হলে তেমন একটি ঘড়ি কিনে ফেলুন। ফোনের অ্যালার্ম বন্ধ করতে গিয়ে বারবার অন্য কিছুতে মন গেলে ঘুমে ব্যাঘাত ঘটবে। এর প্রভাব পড়বে শরীরের ওপর।
তাই অ্যালার্ম ব্যবহারে এই বিষয়গুলো মেনে চলুন।

Link copied!