• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৩ শা’বান ১৪৪৫

স্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকা মেইল ট্রেনে আগুন


পাবনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: নভেম্বর ২৮, ২০২৩, ০৮:২০ এএম
স্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকা মেইল ট্রেনে আগুন
আগুনে ট্রেনের একটি কোচের ১‌১টি আসন পুড়ে গেছে

পাবনার ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকা একটি মেইল ট্রেনের ভেতরে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে ট্রেনের একটি কোচের ১‌১টি আসন পুড়ে গেছে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনের অদূরে ওয়াশফিটে এ ঘটনা ঘটে।

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী, স্টেশন কর্তৃপক্ষসহ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কয়েকজন দুর্বৃত্ত মুখ বাঁধা অবস্থায় ওই ট্রেনের ৬ নম্বর কোচে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। তাৎক্ষণিকভাবে স্টেশনের টহল নিরাপত্তা বাহিনী ও পুলিশ ধাওয়া করেও তাদের ধরতে পারেনি।

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা জানান, ঘটনাটি এত দ্রুত ঘটেছে যে তারা বুঝে ওঠার আগেই ট্রেনের সিটে আগুন ধরে যায়। খবর পেয়ে ঈশ্বরদী দমকল বাহিনীর সদস্যরা গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনের স্টেশন সুপার (এসএস) মহিউল ইসলাম বলেন, ঢাকা থেকে সোমবার দুপুরে ঈশ্বরদীতে আসে সিক্সডাউন ঢাকা মেইল ট্রেনটি। স্টেশনের অদূরে ওয়াশফিটে রেখে ট্রেনটি পরিষ্কার করা হয়। মঙ্গলবার সকালে ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা যাওয়ার জন্য প্রস্তুত ছিল। সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় রাতে দুর্বৃত্তরা ট্রেনের একটি কোচের মধ্যে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে বেশকিছু আসন পুড়ে যায়।

ঈশ্বরদী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ওয়্যারহাউজ পরিদর্শক অপু কুমার মণ্ডল বলেন, ‌“আমরা সাড়ে আটটার দিকে খবর পেয়ে দ্রুত গিয়ে আগুন নেভাই। তবে আগুনে ট্রেনের ৬ নম্বর কোচের ১১টি আসন কমবেশি পুড়ে গেছে।”

পাকশী রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার (ডিআরএম) শাহ সূফী নূর মোহাম্মদ বলেন, নাশকতা করার এ ঘটনায় মামলা হবে এবং তদন্ত কমিটি গঠন করে দ্রুততম সময়ে তদন্ত করা হবে।

এর আগে ১ নভেম্বর দুপুরে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনে কলকাতা-ঢাকা রুটে চলাচলকারী মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনে পেট্রোল বোমা ছুঁড়ে মারে দুর্বৃত্তরা। এতে ট্রেনের একটি জানালার গ্লাস ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর ৩ নভেম্বর সকালে স্টেশনের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রেনের নিচ থেকে একটি তাজা বোমা উদ্ধার করে নিষ্ক্রিয় করে র‌্যাব।

Link copied!