• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট, ২০২২, ৩ ভাদ্র ১৪২৯

শিশুকে নিয়ে ভ্রমণে যে বিষয়ে খেয়াল রাখবেন


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুলাই ২৯, ২০২২, ০৪:৪৩ পিএম
শিশুকে নিয়ে ভ্রমণে যে বিষয়ে খেয়াল রাখবেন

ভ্রমণপিপাসুরা সুযোগ পেলেই ঘুরতে যান। সঙ্গীকে নিয়ে বিয়ের পর কয়েকবার ভ্রমণে বেরিয়েছেন। কিন্তু সন্তান জন্মের পর সেই সুযোগ অনেকটাই কমে গেছে। সন্তান জন্মের পর চট করে আর  ঘুরতে বের হওয়া যায় না। কারণ সন্তানকে নিয়ে যাওয়ার আগে বেশকিছু প্রস্তুতি নিতে হয়। অনেকের কাছে এটি বেশ ঝামেলার মনে হয়। তাই ঘুরাফেরা বাদ দিয়ে বাড়িতেই রয়ে গেছেন বহুবছর। 

একদমই নয়, সন্তান জন্মের পরও দিব্যি ঘুরে বেড়ানো সম্ভব। তবে কিছু বিষয় খেয়াল রাখলেই সন্তানকে নিয়ে যেকোনও স্থানে ভ্রমণে যেতে পারবেন। শিশুকে নিয়ে ভ্রমণে যে বিষয়গুলো মনে রাখতে হবে চলুন জেনে নেই এই আয়োজনে।

  • শিশুকে ভ্রমণে অভ্যস্ত করতে হবে। প্রথম ভ্রমণটা তাই কাছেই কোথাও হোক। বেশি দূরে কোথাও ভ্রমণে না গিয়ে প্রথমে কাছেই ঘুরে আসুন। শিশু বাইরের পরিবেশের সঙ্গে অভ্যস্ত হয়ে উঠবে। এতে দূরের ভ্রমণে শিশুর অস্বস্তিবোধ হবে না। 
  • শিশুকে নিয়ে ভ্রমণে যাওয়ার আগে টিকিট কাটার সময়টা খেয়াল রাখুন। মাঝরাতে ছাড়বে এমন বিমানের টিকিট কাটবে না। এতে শিশুর বিশ্রামে ব্যাঘাত ঘটবে।
  • শিশুর রাতের ঘুম যেন নষ্ট না হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন। রাতের পরিবর্তের দিনের বেলায় ভ্রমণ করুন। রাতের ঘুম ভালো না হলে শিশুরা বিরক্ত করবে। তাই রাতের আরামদায়ক ঘুম নিশ্চিত করুন। 
  • ভ্রমণের সময় শিশুদের হালকা পোশাক পরান। যে পোশাকে শিশুরা স্বচ্ছন্দবোধ করবে এমন পোশাকই পরাবেন। নয়তো শিশুদের অস্বস্তিতে থাকবে এবং বিরক্ত করবে।
  • বিমানে ভ্রমণের সময় ‘টেকঅফ’ ও ‘ল্যান্ডিং’-এ শিশুদের কান বন্ধ হয়ে যেতে পারে। এতে শিশুরা আতঙ্কিত হয়ে কান্নাকাটি করতে পারে। তাই ললিপপ সঙ্গে রাখুন। এতে শিশুরা কান বন্ধের অনুভূতি টের পাবে না।  রাখতে পারেন।
  • ভ্রমণের সময় শিশুর জন্য খাবারের ব্যবস্থা রাখুন। কিছু খাবার সঙ্গেই ক্যারি করুন। শিশুদের কিছুক্ষণ পরপর ক্ষুদা পায়। শুকনো খাবার খেলে শিশুদের ক্ষুদা পাবে না। বিরক্তও করবে না। 
  • ভ্রমণের সময় গন্তব্যে পৌঁছতে দেরি হতে পারে। বিষয়টি মাথায় রাখুন। এক্ষেত্রে বাড়তি পোশাক ও খাবার সঙ্গে নিতে ভুলবেন না। শিশুর স্বাচ্ছন্দ্যের বিষয়ে নজর রাখুন।
  • ভ্রমণের সময় শিশুকে বাইরের খাবার একদমই দেওয়া যাবে না। এতে শিশুরা শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে যেতে পারে। তাছাড়া বাইরের খাবারে শিশুর রুচিও নষ্ট হবে। ভালো খাবার এড়িয়ে যাবে এবং শিশু দুর্বল হয়ে যেতে পারে।
  • ভ্রমণে যাওয়া আগে শিশুর জন্য বাড়তি পোশাকের সঙ্গে ছোট্ট বালিশের ব্যবস্থাও রাখুন। 
  • শিশুর প্রয়োজনীয় ওষুধ নিতে ভুলবেন না। তাছাড়া সাধারণ কিছু ওষুধ অবশ্যই সঙ্গে রাখবেন। শিশুচিকিৎসকের নম্বর সঙ্গেই রাখবেন। যেন প্রয়োজনে যোগাযোগ করা যায়।