• ঢাকা
  • বুধবার, ২৪ জুলাই, ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৮ মুহররম ১৪৪৫
ডিপিএল ২০২২

নুরুলের ঝোড়ো সেঞ্চুরিতে শিরোপার আরও কাছে শেখ জামাল


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০২২, ১০:৩২ পিএম
নুরুলের ঝোড়ো সেঞ্চুরিতে শিরোপার আরও কাছে শেখ জামাল
ছবি- সংগৃহীত

চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) সুপার লিগে নবাগত রুপগঞ্জ টাইগার্স ক্রিকেট ক্লাবের দেয়া ২৪৮ রানের লক্ষ্যে নেমে ৮১ রানের মধ্যেই ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব। নিশ্চিত হারের মুখে থাকা শেখ জামালকে ঝোড়ো এক সেঞ্চুরি তুলে অসাধ্য সাধন করলেন উইকেটকিপার ব্যাটার নুরুল হাসান সোহান।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ডানহাতি এই ব্যাটার ১১৮ বলে ১০ বাউন্ডারি আর ৫টি ছক্কায় সাজানো ১৩২ রানের অসধারণ এক ইনিংসে রূপগঞ্জ টাইগার্সকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে শেখ জামাল। এই জয়ে ১২ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে প্রথমবার শিরোপা জয়ের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেলো ইমরুল কায়েসের নেতৃত্বাধীন দলটি।

প্রথমে রূপগঞ্জ টাইগার্স টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৪৪ রান করে। একপ্রান্ত ওপেনার জাকির হাসান আগলে থাকলেও সতীর্থরা আসা-যাওয়ার মাঝে পড়ে যান। একে একে সাজঘরের পথ ধরেন আজমির আহমেদ (১৪), আসিফ আহমেদ রাতুল (০) ও মার্শাল আইয়ুব (২৩) ও ফজলে মাহমুদ রাব্বি (২৫)।

পঞ্চম ব্যাটার হিসেবে ওপেনার জাকির ব্যক্তিগত ৭৫ রানে ফিরে যান ভারতীয় পারভেজ রসুলের বলে বোল্ড হয়ে। ৯৮ বলের ইনিংসে এই বাঁহাতি ৭টি চারের মার মারেন। তার বিদায়ের পর দ্রুতই ফিরে যান শরিফউল্লাহ। তবে সপ্তম উইকেটে দ্রুত রান সংগ্রহ করেন পাকিস্তানি ব্যাটার সাদ নাসিম ও নাসুম আহমেদ।

সপ্তম উইকেট জুটিতে অবিচ্ছিন্ন ৫৫ রানের ইনিংস গড়ে রূপগঞ্জ টাইগার্সের সংগ্রহ ২৪৭ রান পর্যন্ত টেনে নিয়ে যান নাসিম ও নাসুম। আগের ম্যাচে শতক হাঁকানো নাসিম আজ ৪৩ বলে দুইটি করে চার ও ছক্কায় ৫০ রানে অপরাজিত থাকেন। আর নাসুমের অবদান ১৭ বলে ২৭ রান।

শেখ জামালের পক্ষে তিন স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ ৩টি, সানজামুল ইসলাম ২টি এবং পারভেজ রসুল ১টি উইকেট নেন।

জবাবে রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ধানমণ্ডির ক্লাবটি। দলীয় ৩৩ রানের মধ্যেই ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে শেখ জামাল। এদিন রবিউল ইসলাম রবি (০), সাইফ হাসান (১১) ও ইমরুল কায়েস (১২)  রানে ফিরলে ক্রিজে আসেন সোহান। চতুর্থ উইকেটে মুশফিকুর রহিমের সাথে ৪৫ রানের জুটি গড়ে প্রাথমিক চাপ সামাল দেন। কিন্তু মুশফিক ৪২ বলে ৩২ রান করে শরিফের বলে বিদায়ের পরের ওভারেই বিদায় নেন পারভেজও।

৮১ রানে পাঁচ উইকেট হারানো শেখ জামালকে উদ্ধার করেন মিরাজ ও সোহান জুটি। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ১৩৪ রান করে দলকে জয়ের আশা দেখান। কিছুটা ধীরগতিতে ব্যাটিং করে ৭৪ বলে ৪৩ রানের ম্যাচ বাঁচানো ইনিংস খেলে মিরাজ বিদায় রান আউট হয়ে।

ওদিকে সোহান রান তুলছিলেন দ্রুতই। ফলে মিরাজের বিদায়ের পরের বলেই সেঞ্চুরি তুলে নেন সোহান। তারপরও বড় দায়িত্ব পড়ে ছিল। সোহান সেই দায়িত্ব পালন করেছেন একদম ঠান্ডা মাথায়। শেষ দুই ওভারে শেখ জামালের দরকার পড়ে ২৩ রান। কিন্তু সোহান কোনো সুযোগই দেননি রূপগঞ্জ টাইগার্সকে। মুগ্ধর করা ওভারে ২ চার আর ৩ ছক্কা হাঁকিয়ে শেষ করে দেন উইকেটরক্ষক এই ব্যাটার। 

Link copied!