• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

লাইলাতুল কদরে মক্কা-মদিনায় রেকর্ড সংখ্যক মুসল্লির উপস্থিতি


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৮, ২০২৩, ০১:২১ পিএম
লাইলাতুল কদরে মক্কা-মদিনায় রেকর্ড সংখ্যক মুসল্লির উপস্থিতি

পবিত্র লাইলাতুল কদর বা শবেকদর। প্রতিবছর পবিত্র রমজানের ২৬ তারিখ রাতে শবেকদর পালন করা হয়। মুসলমানদের কাছে অত্যন্ত মহিমান্বিত একটি রাত এটি। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ইবাদত-বন্দেগির মাধ্যমে সারা রাত কাটিয়ে দেন। আর পবিত্র এ রজনীতে ইসলামের পবিত্র দুই নগরী মক্কা ও মদিনায় মুসল্লিদের ঢল নেমেছিল। শবেকদরের সম্ভাব্য এ রাতে মক্কার মসজিদুল হারামে ১০ লাখের বেশি মুসল্লি উপস্থিত ছিলেন।

মঙ্গলবার (১৮ এপ্রিল) আরব নিউজ এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে। এতে বলা হয়, মক্কার কাবা প্রান্তরজুড়ে লাখ লাখ মুসল্লি শবেকদরের রাতে ইবাদত বন্দেগিতে শামিল হন। কাবা প্রান্তর ছাড়িয়ে আশপাশের রাস্তাঘাটও মুমিন বান্দায় পূর্ণ হয়ে ওঠে। দ্বিতীয় পবিত্র মসজিদে মদিনার মসজিদে নববিতেও লাখো মুসল্লি এই রাতে ইবাদতে অংশ নেন।

প্রত্যক্ষদর্শী একজন জানান, পবিত্র ঘরের ইতিহাসে এই প্রথম রমজানে মক্কা থেকে সাড়ে তিন কিলোমিটার দূর পর্যন্ত নামাজের কাতার পৌঁছায়।  এ পুরো পথ সারিবদ্ধ হয়ে নামাজ আদায় করেছেন মুসল্লিরা।

মক্কা ও মদিনার পবিত্র দুই মসজিদের পরিচালনা পরিষদের প্রধান শায়খ আবদুর রহমান আস-সুদাইস, মক্কায় বরকতময় এ রাতে নামাজ পরিচালনা করেন।

মুসল্লিদের সুবিধার্থে মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদে ৪ হাজার কর্মী নিয়োজিত রয়েছেন এবং ৭০টি ফিল্ড টিম দ্বারা মসজিদটি ২৪ ঘণ্টা পরিষ্কার করা হচ্ছে।

লাইলাতুল কদরের ফজিলত অন্বেষণে মক্কা ও মদিনার মসজিদ প্রাঙ্গণে মুসল্লিদের ভিড় বাড়তে থাকে বিকাল থেকেই। মসজিদের প্রতিটি ফ্লোর ছিল মুসল্লিদের ভিড়ে ঠাসা। মক্কা হারাম শরিফের বাইরেও অনেক দূরে রাস্তায় মুসল্লিরা নামাজ আদায় করেছেন।

Link copied!