• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪৫

রাহুলের বক্তব্যের সময় খালিস্তানপন্থীদের হট্টগোল


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুন ১, ২০২৩, ১২:৩৪ পিএম
রাহুলের বক্তব্যের সময় খালিস্তানপন্থীদের হট্টগোল

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় এক অনুষ্ঠানে রাহুল গান্ধী বক্তব্য দেওয়ার সময় খালিস্তানের পতাকা নেড়ে হট্টগোল শুরু করেন ‘শিখস ফর জাস্টিস (এসএফজে)’ খালিস্তানি সমর্থকরা। এ সময় রাহুল গান্ধী বক্তব্য দেওয়া বন্ধ রাখেন। অনুষ্ঠানের একটি হট্টগোলের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। এতে দেখা গেছে, তার বক্তব্যের সময় খালিস্তান সমর্থকদের স্লোগান দিচ্ছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে। এতে বলা হয়, এসএফজে সংগঠনটি একটি পৃথক খালিস্তানী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে বিশ্বব্যাপী খালিস্তান আন্দোলন চালায়। রাহুল গান্ধীর কর্মসূচিতে হট্টগোল হলে রাহুল অস্বস্তি বোধ করেননি। তার মুখে একই পরিচিত হাসি। তবে বিক্ষোভ বাড়তে থাকায় বক্তব্য বন্ধ করে দেন রাহুল।

ভিডিও দেখা গেছে, রাহুলের বক্তব্যের এক পর্যায়ে খালিস্তানের সমর্থকরা হট্টগোল করছেন। এ সময় রাহুল তার বক্তব্য বন্ধ করেন। পাশাপাশি তিনি হাসি দিয়ে তাদের স্বাগত জানান। পরে তিনি আবার বক্তব্য শুরু করলে পুনরায় খালিস্তান সমর্থকরা হট্টগোল করে খালিস্তান স্লোগান দেন।

রাহুল গান্ধীর অনুষ্ঠানে এই হট্টগোলের ভিডিও প্রকাশ করেছেন গুরপতবন্ত সিং পান্নু। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও হুমকি দিয়েছেন তিনি। গুরপতবন্ত সিং পান্নুকে একটি ভিডিওতে হুমকি দিতে দেখা যায়, রাহুল গান্ধী যুক্তরাষ্ট্রের যেখানেই যাবেন, তার সামনে খালিস্তানিরা দাঁড়াবে। তিনি হুমকি দিয়েছেন, ২২ জুন মোদির সফরের সময়ও একই রকম হট্টগোল হবে।

রাহুল গান্ধী ১০ দিনের মার্কিন সফরে রয়েছেন এবং বুধবার সান ফ্রান্সিসকোতে অনাবাসী ভারতীয়দের সঙ্গে তার প্রথম সাক্ষাত ছিল যা ইতোমধ্যেই বিতর্কের কেন্দ্র হয়ে উঠেছে।

ভারতের পাঞ্জাবের অন্যতম নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী শিখ সম্প্রদায়। যারা দীর্ঘদিন থেকে ভারত থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র ‘খালিস্তানের’ দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। পাঞ্জাব, হরিয়ানা, হিমাচল, জম্মু-কাশ্মীর ও রাজস্থানের অংশবিশেষ নিয়ে প্রস্তাবিত এই স্বাধীন রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে শিখদের পছন্দ চণ্ডীগড় শহর। এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই আন্দোলন চালিয়ে আসছে তারা। ওই আন্দোলন ‘খালিস্তানি’ আন্দোলন নামে পরিচিত।

১৯৮০-এর দশকের দিকে সেই আন্দোলন দমনে ভারত সরকার হাজার হাজার শিখ বিদ্রোহীকে হত্যা করেছিল। তাদের সেই আন্দোলন সেখানেই শেষ হয়ে গিয়েছিল। এরপর পেরিয়ে গেছে দীর্ঘ সময়। শিখদের পৃথক মাতৃভূমির স্বপ্নকে পুনরায় পুনরুজ্জীবিত করার চেষ্টা করছেন খালিস্তানপন্থী নেতা অমৃতপাল সিং।

Link copied!