• ঢাকা
  • রবিবার, ২৩ জুন, ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১, ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

রজত জয়ন্তীতে ‘হিরো-দ্য সুপারস্টার’র প্রশংসায় তিন অভিনেতা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২৪, ০১:৫৭ পিএম
রজত জয়ন্তীতে ‘হিরো-দ্য সুপারস্টার’র প্রশংসায় তিন অভিনেতা
শাকিব খান। ছবি ফেসবুক থেকে

১৯৯৯ সালে শাকিব খান প্রথম চুক্তিবদ্ধ হন ‘সবাই তো সুখী হতে চায়’ নামে একটি সিনেমায়। আফতাব খান টুলু পরিচালিত সে সিনেমার মাধ্যমে তিনি প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিলেন। এতে তার বিপরীতে ছিলেন কারিশমা শেখ। তবে ‘অনন্ত ভালোবাসা’ শাকিবের প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা। ১৯৯৯ সালের ২৮ মে সেটি মুক্তি পায়।

‘অনন্ত ভালোবাসা’ পরিচালনা করেন প্রয়াত সোহানুর রহমান সোহান। সেখানে শাকিব খানের বিপরীতে ছিলেন চিত্রনায়িকা মৌসুমীর ছোটবোন ইরিন জামান। দুজনেরই অভিষেক চলচ্চিত্র হিসাবে স্মরণীয় হয়ে আছে ‘অনন্ত ভালোবাসা’। সিনেমাটি ব্যবসায়িকভাবে সফল হয় এবং নায়ক হিসেবে নজর কাড়েন শাকিব খান।

মঙ্গলবার  (২৮ মে) রূপালী পর্দার শাকিব খানের অভিনয় ক্যারিয়ারের বয়স পূর্ণ হল ২৫ বছর। ১৯৯৯ সালের আজকের দিনে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়েছিল তার। রজত জয়ন্তীতে ‘হিরো—দ্য সুপারস্টার’কে নিয়ে বলেছেন তার অনুজ তিন নায়কে নিয়ে বলেছেন নায়ক মামনুন ইমন, নিরব হোসেন ও সিয়াম আহমেদ।

শাকিব খানকে নিয়ে  নায়ক মামনুন ইমন বলেন, ‘অনেকেই শাকিব ভাইকে ঈর্ষা করেন, তাঁর বিরুদ্ধে বলেন । তবে সবাইকে মানতেই হবে, ঢাকাই ইন্ডাস্ট্রির একমাত্র মেগাস্টার তিনি। তাঁর মতো এমন ফ্যানবেইস আর কারো নেই। শুধু অন্তর্জালের ‘শাকিবিয়ান’রা তাঁর ফ্যান, তা কিন্তু নয়। সেটা হলে ‘প্রিয়তমা’ এমন হিট হতো না। হয়তো সালমান শাহ বেঁচে থাকলে তাঁর ক্যারিয়ারও এমন ২৫ বছর বা আরো বেশি দীর্ঘ হতো। তিনি আজ আমাদের মাঝে নেই। শাকিব খান দেখিয়েছেন কিভাবে বছরের পর বছর শীর্ষস্থান ধরে রেখে ইন্ডাস্ট্রি লিড দেওয়া যায়। আজকাল অনেকের একটা ছবি হিট করলে মাটিতে আর পা পড়ে না। অথচ বছরের পর বছর ছবি হিট দিয়ে এখনো কী বিনয়ী শাকিব ভাই! মাটিতে পা রেখেই চলেন। ভাইয়ের দুটি জিনিস আমাকে সব সময় টানে—তিনি খুব বিনয়ী এবং তাঁর ‘হজমশক্তি’ দারুণ ‘

ইমন আরো বলেন, ‘ আমি যখন ইন্ডাস্ট্রিতে এলাম তখন থেকেই শুনছি, শাকিব শেষ! আর চলবে না। অথচ এখনো শাকিব ভাই তাঁর জায়গায় আছেন। যাঁরা এই ধরনের অপপ্রচার চালিয়েছেন, শাকিব ভাই তাঁদের চেনেন, কিছু বলেন না।
এটা অনেক বড় ব্যাপার। আজ ক্যারিয়ারের ২৫ বছর পূর্ণ করলেন শাকিব ভাই। দোয়া করি, তিনি আরো ওপরে উঠুন। শাকিব ভাই, আপনি আকাশ ছুঁয়ে ফেলুন।

জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেতা নিরব হোসেন বলেন, ‘ ২৫ বছরের ক্যারিয়ার কিন্তু যা-তা ব্যাপার নয়। আগেও অনেক তারকা ছিলেন। বিশেষ করে রাজ্জাক স্যার, আলমগীর স্যাররা তো লিজেন্ড। তবে শাকিব ভাইয়ের মতো দীর্ঘ সময় নাম্বার ওয়ান থাকাটা অনেক বড় ব্যাপার। আমার ক্যারিয়ারে প্রথম চারটি ছবিই শাকিব ভাইয়ের সঙ্গে। সেই প্রথম কক্সবাজারে একসঙ্গে শুটিং করেছি আমরা। প্রথম দিন আমাকে গল্পের ছলে অনেক কিছু বুঝিয়েছিলেন। ইন্ডাস্ট্রি সর্ম্পকে অনেক ধারণাও দিয়েছিলেন। অনেকের কাছে শাকিব খান তারকা, কিন্তু আমার সঙ্গে সব সময় তিনি বড় ভাইয়ের মতো মিশেছেন। কখনোই তারকার ভাব দেখাননি। শুধু আমি কেন, অনুজদের খুব কম তারকাই শাকিব ভাইয়ের মতো এত ভালোবেসেছেন। তিনি আজ আমাদের ইন্ডাস্ট্রিকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। কেউ কি ভেবেছিল বাংলা ছবির বাজেট আট-দশ কোটি টাকা হবে? শাকিব ভাই আছেন বলেই আজ একটা ‘প্রিয়তমা’ দেখতে পেরেছি। অপেক্ষায় আছি ‘তুফান’ ও ‘দরদ’ দেখার। শাকিব ভাইয়ের এই পথচলা ননস্টপ চলুক ‘।

নায়ক সিয়াম আহমেদ বলেন ,‘শাকিব ভাই আমাদের সবার ভালোবাসার মানুষ। ২৫ বছরের ক্যারিয়ার যেকোনো তারকার জন্য সৌভাগ্যের। তাঁর সঙ্গে মানুষের দোয়া আছে, আছে সহকর্মীদের নিঃস্বার্থ ভালোবাসা। শাকিব ভাই সব সময় আমাদের অনুপ্রেরণার জায়গায় আছেন। তিনি একেকটা ঝুঁকি নিচ্ছেন আর আমরাও একেকটা স্বপ্ন দেখার সাহস করছি। আজ ছোট্ট এই ইন্ডাস্ট্রিকে তিনি নতুন করে গড়ার চেষ্টা করছেন। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিশ্বদরবারে আমাদের চলচ্চিত্রের বাজার তৈরিতে ভূমিকা রাখছেন। আমরাও তাঁর সঙ্গে আছি। শাকিব ভাইয়ের ক্যারিয়ার সত্যিই অপ্রতিদ্বন্দ্বী। যেকোনো অভিনেতাই চান এমন স্টারডম। আজকের এই দিনে আমি চাই, তিনি নিজেকে আরো ভেঙে, আরো বেশি চ্যালেঞ্জিং গল্প ও চরিত্রে হাজির হন। দর্শক তাঁর সঙ্গে সব সময় ছিল, আগামীতেও থাকবে বলে আমার বিশ্বাস। সব শিল্পীই শাকিব ভাইকে সম্মান করেন, এই সম্মান দিন দিন আরো বাড়বে। আমরা তাঁর আরো সফলতা কামনা করছি। ২৫ বছর পেরিয়ে ৫০ বছর হোক তাঁর এই ক্যারিয়ার। সেই দিনটাও যেন সবাই মিলে উদযাপন করতে পারি।’

ঈদে আসছে সুপারস্টার শাকিব খানের বহুল আলোচিত সিনেমা ‘তুফান’। ইতোমধ্যে সিনেমার টিজার ব্যপক প্রশংসিত হয়েছে।  মুক্তির মিছিলে রয়েছে অনন্য মামুন পরিচালিত সিনেমা ‘দরদ’।

 

Link copied!