• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলা মামলার রায় ১৮ এপ্রিল


সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: এপ্রিল ১২, ২০২৩, ০৫:০৯ পিএম
শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলা মামলার রায় ১৮ এপ্রিল

২০০২ সালের ৩০ আগস্ট সকাল ১০টায় তৎকালিন বিরোধী দলীয় নেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় করা অস্ত্র ও বিস্ফোরকদ্রব্য আইনের দুটি মামলায় আসামি পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়েছে।

বুধবার (১২ এপ্রিল) সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত সাতক্ষীরার স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক বিশ্বনাথ মণ্ডলের আদালতে এই যুক্তিতর্ক শেষে বিচারক রায়ের দিন ঘোষণা করেন।

এদিন আসামিপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আমিনুল ইসলাম। তার সঙ্গে আরও যুক্ত হন অ্যাড. মিজানুর রহমান পিন্টু, আব্দুল মজিদ এবং শাহানারা পারভিন বকুল প্রমুখ।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন জজ কোর্টের পিপি আব্দুল লতিফ, অতিরিক্ত পিপি ফাহিমুল হক কিসলু, আব্দুস সামাদ প্রমুখ।

সাতক্ষীরা জেলা কারাগার থেকে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ ৩৮ জন আসামিকে স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল-৩ এর কাঠগড়ায় হাজির করানো হয়। মামলায় অ্যাড. আব্দুস সাত্তার নামের এক আসামি জামিনে মুক্ত রয়েছেন এবং নয়জন পলাতক রয়েছেন।

যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার আমিনুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, “এটি একটি মিথ্যা ও সাজানো মামলা। ঘটনার ১২ বছর পর সেখান থেকে গুলির খোসা ও বোমার কৌটা উদ্ধার করা সম্ভব না। এমনকি রাষ্ট্রপক্ষের ১৫ জন সাক্ষীর কেউ এ কথা বলেননি। আশা করছি আদালত ন্যায় বিচার করবেন।“

সাতক্ষীরা জজ আদলতের পিপি আব্দুল লতিফ জানান, ১৫ জন সাক্ষী আদলতে সাক্ষ্য দিয়েছে। রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়েছে। আগামী ১৮ এপ্রিল মঙ্গলবার রায়ের দিন ধার্য্য করেছেন আদালত।

২০০২ সালের ৩০ আগস্ট সকাল ১০টায় তৎকালিন বিরোধী দলীয় নেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক মুক্তিযোদ্ধার ধর্ষণের শিকার স্ত্রীকে দেখতে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে আসেন। সেখান থেকে যশোরে ফিরে যাওয়ার পথে বেলা ১১টায় বিএনপির নেতাকর্মীরা কলারোয়ার দলীয় অফিসের সামনে তার গাড়ি বহরে হামলা চালায়। হামলায় আওয়ামী লীগের ১ ডজন নেতা-কর্মী আহত হন। এ ঘটনায় করা মামলায় ২০২১ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি তালা-কলারোয়ার বিএনপি দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ ৫০ জন নেতাকর্মীকে চার থেকে ১০ বছর মেয়াদে সাজা প্রদান করেন সাতক্ষীরার মূখ্য বিচারিক হাকিম হুমায়ুন কবির। গত বছরের ১৪ জুন অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনের দুটি মামলায় চার্জ গঠন করা হয়।

Link copied!