• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০১ মার্চ, ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৯ শা’বান ১৪৪৫

জমি বেচে মনোনয়নপত্র তুললেন গ্রাম পুলিশ সদস্য


নাটোর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২৩, ১২:২৮ পিএম
জমি বেচে মনোনয়নপত্র তুললেন গ্রাম পুলিশ সদস্য
মো. এসকেন আলী। ছবি : সংগৃহীত

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনে নির্বাচন করতে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন ফরম তুলেছেন মো. এসকেন আলী (৪১) নামে এক ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ। নির্বাচনের খরচ মেটাতে তিনি এক কাঠা জমি বিক্রি করেন।  

জানা যায়, মো. এসকেন আলী লালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার (গ্রাম পুলিশ) হিসেবে কর্মরত।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন লালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা শামীমা সুলতানা। 

সরকারি চাকরিরত (গ্রাম পুলিশ) অবস্থায় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে কোনো বাধ্যবাধকতা রয়েছে কি-না জানতে চাইলে ইউএনও জানান, এসকেন আলী মনোনয়নপত্র দাখিল করলে বিষয়টি রিটার্নিং কর্মকর্তা বিবেচনা করবেন।

এসকেন আলী উপজেলার বালিতিতা ইসলামপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি জানান, তিনি বুধবার সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র কিনেছেন। ৩০ নভেম্বরের মধ্যেই যাবতীয় নিয়মকানুন মেনে মনোনয়নপত্র দাখিল করবেন তিনি।

এর আগে, লালপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য পদে দুবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন এসকেন আলী। একবার তৃতীয় হয়েছিলেন। এছাড়া একবার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য পোস্টার ছাপিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু আর্থিক সংকটের কারণে শেষ পর্যন্ত নির্বাচন করতে পারেননি বলে জানান এসকেন।

২৭ বছর ধরে চৌকিদারি করছেন উল্লেখ করে এসকেন আলী বলেন, ‘‘একবারের জন্য হলেও আমি এমপি (সংসদ সদস্য) নির্বাচন করব। আল্লাহ চাইলে এমপি হয়েও যেতে পারি। আমার সঙ্গে লালপুর-বাগাতিপাড়া উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন পরিষদে কয়েকশ সহকর্মী চৌকিদার আছেন। তারা ও তাদের পরিবার–পরিজন আমার কর্মী। তাদের সঙ্গে নিয়ে আমি নির্বাচনে লড়ব। এখন অনেক ভোটার রাজনীতি পছন্দ করেন না। তারা আমাকে ভোট দিবেন।’’

সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র কেনা ও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার খরচের বিষয়ে জানতে চাইলে এসকেন আলী বলেন, ‘‘আমার অল্প কিছু জমি রয়েছে। সেখান থেকে এক কাঠা জমি আড়াই লাখ টাকায় বিক্রি করেছি। মনোনয়নপত্র কেনাসহ এখন পর্যন্ত ৩৬ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। যা অবশিষ্ট আছে, তা দিয়ে পোস্টার ছাপাব ও মাইকিং করব।’’

নির্বাচনে প্রভাবশালী প্রার্থীদের মোকাবিলার বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে এসকেন আলী বলেন, ‘‘আমি তো গরীব মানুষ। সবাই এটা জানে। মানুষ আমাকে ভোট দেবেন ভালোবেসে। তাই আমি ক্ষমতাধর প্রার্থীদের নিয়ে ভাবছি না।’’

লালপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, তিনি ঢাকায় রয়েছেন। লালপুরের ইউএনও ফোন করে তাকে এসকেন আলী চৌকিদারের মনোনয়নপত্র সংগ্রহের বিষয়টি জানিয়েছেন।

ইউপি চেয়ারম্যান জানান, এ খবর শুনে তিনি চমকে গেছেন, তবে বিরক্ত হননি। কারণ, দেশের প্রতিটি যোগ্য নাগরিকের সংসদ সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অধিকার আছে।

উল্লেখ্য, নাটোর-১ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের শহিদুল ইসলাম।

Link copied!