• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ জুলাই, ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৪ মুহররম ১৪৪৫

সংবাদ প্রকাশে খবরের পর বর্জ্য অপসারণ


কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ১৪, ২০২২, ০৩:১৫ পিএম
সংবাদ প্রকাশে খবরের পর বর্জ্য অপসারণ

কুড়িগ্রাম পৌর শহড়জুড়ে ময়লা-আবর্জনা। চিপসের মোড়ক, কলার খোসা, অব্যবহৃত মাস্ক, কোমল পানীর পরিত্যক্ত বোতলসহ এরকম বিভিন্ন ময়লা আবর্জনা যত্রতত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকত শহরজুড়ে। দিনের পর দিন ডাস্টবিনে ময়লায় পরিপূর্ণ হওয়া পর এসব যখন রাস্তার পাশে ফুটপাতে ছড়িয়ে দুর্গন্ধ ছড়াতো আশপাশে। দায়িত্ববানদের অবহেলা ও পৌর কর্তৃপক্ষের চরম অব্যবস্থাপনার ফলে পরিবেশ দূষিত হবার পাশাপাশি স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে থাকতেন পৌরবাসী।

এ নিয়ে গত ৬ আগস্ট শনিবার সংবাদ প্রকাশ এ ‘শহরজুড়ে চিপসের মোড়ক কলার খোসা অব্যবহৃত মাস্ক’ শিরোনামে একটি খবর প্রকাশিত হয়। এতে টনক নড়ে কর্তৃপক্ষের। খবরে উল্লিখিত স্থানগুলোতে রোববার (১৪ আগস্ট) সকালে কুড়িগ্রাম পৌরসভার ময়লা পরিষ্কার করার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা পরিপূর্ণ ডাস্টবিনের বর্জ্যগুলো অপসারণ করেন এবং ফুটপাতে পড়ে থাকা প্লাস্টিক, ব্যবহৃত মাস্ক, কলার খোসা, পানির বোতল ইত্যাদিও সরিয়ে ফেলেন। ফলে দুর্গন্ধের হাত থেকে রেহাই পায় পৌরবাসী।

কুড়িগ্রাম পৌর শহরের বাসিন্দা হাবিবুল ইসলাম বলেন, “প্রতিদিন ডাস্টবিনের সামনের এসব ময়লা ডিঙ্গিয়ে মসজিদে নামাজ পড়তে যেতে হতো। যা খুবই বিরক্তিকর একটি বিষয় ছিলো। সংবাদ প্রকাশে নিউজটা আসার পর মোটামুটি পৌরসভার লোকজন ময়লার স্তুপগুলো সরিয়ে নিচ্ছে। এজন্য ধন্যবাদ অনলাইন এই গণমাধ্যমটিকে।”

গাড়িয়ালপাড়া দিয়ে চলাচলরত শিক্ষক দুলাল হোসেন বলেন, “আমাকে প্রতিদিন এ পথ দিয়ে নাক চেপে কোচিংয়ে যেতে হতো। গতকাল থেকে দেখছি এখানকার ডাস্টবিনগুলো পরিস্কার। আশা করবো পৌরসভার লোকজন এটি নিয়মিত পরিস্কার করবেন। আপনারা নিউজ করায় অনেক উপকার হয়েছে।”

পুরাতন পশু হাসপাতাল মোড়ের ব্যবসায়ী মাঈদুল ইসলাম বলেন, “দোকানের সামনে ময়লার ভাগাড় জমে থাকতো। দুর্গন্ধের কারণে লোকজন আসতো না। সংবাদ প্রকাশে সংবাদটি আসার পর আজ সকালে ডাস্টবিনের ময়লাগুলো নিয়ে গেছে। ধন্যবাদ আপনাদের।”

নিয়মিত ডাস্টবিনের বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে কুড়িগ্রাম পৌরসভার বর্জ্য ব্যবস্থাপনা পরিদর্শক চপল ব্যানার্জি বলেন, “আমাদের লোকবল সংকটের কারণে প্রতিনিয়ত বর্জ্য অপসারণে কিছুটা বিলম্ব হয়। এরপরও শহরকে পরিস্কার রাখতে আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করি। আপনারা সংবাদের মাধ্যমে বিষয়টি তুলে ধরে আমাদের এ কাজকে আরও সহজ করে দিয়েছেন। ধন্যবাদ আপনাদের।”

স্বদেশ বিভাগের আরো খবর

Link copied!