• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১, ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

ক্যারিয়ারের কঠিন এবং পাগলাটে মুহূর্তের কথা জানালেন সাকিব


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: অক্টোবর ১, ২০২৩, ০৩:১৫ পিএম
ক্যারিয়ারের কঠিন এবং পাগলাটে মুহূর্তের কথা জানালেন সাকিব
বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের মাটিতে ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ দরজায় কড়া নাড়ছে। বিশ্বকাপের ১৩তম আসর শুরু হবে ৫ অক্টোবর, এরই মধ্যে দলগুলো ভারতে পৌঁছে গিয়েছে। বিশ্বকাপের দামামা শুরু হয়ে গিয়েছে তবে বিশ্বমঞ্চে লড়াইয়ের আগে বাংলাদেশ দলের ওপর দিয়ে বইয়ে যাচ্ছে বিতর্কের ঝড়।

বিশ্বকাপে অংশ নেয়ার জন্য দেশ ছাড়ার আগে একটি টেলিভিশন চ্যানেল সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এবার এক ইউটিউবার ও সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের পোস্টার বয় সাকিবের আরও একটি সাক্ষাৎকার। যেখানে সাকিব তার খেলোয়াড়ি জীবনের পাশাপাশি ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও দিয়েছেন বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর।

দেশের জনপ্রিয় ইউটিউবার ও সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার রাফসান তার ফেসবুক পেজ রাফসান দ্য ছোট ভাইতে সাকিবের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। যেটি সাকিব বিশ্বকাপ খেলতে দেশ ছাড়ার আগেই তাকে দিয়েছিলেন। তবে শনিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টায় সাক্ষাৎকারটি নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে পোস্ট করেন রাফসান।

সাক্ষাৎকারের প্রথমেই রাফসান সাকিবের কাছে তার জীবনের সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং দুটি সময় সম্পর্কে জানতে চান। সাকিব বলেন, “চ্যালেঞ্জিং টাইম যদি বলতে হয় তবে দুইবার বলব, যখন সাসপেন্ড হয়েছি দুইবার।”

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ‘মারাত্মক ধরনের আচরণগত  সমস্যার কারণ দেখিয়ে ২০১৪ সালে সাকিবকে ৮ মাসের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করে। তবে শাস্তির সাড়ে তিন মাস পার হতেই বিসিবি তার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়।

এরপর, ২০১৯ সালে দ্বিতীয়বারের মতো সাকিব ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন। এবার আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী কমিশন (আকসু) সাকিবের বিরুদ্ধে দুর্নীতিবিরোধী আইন ভঙ্গের অভিযোগ আনে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে এক বছরের জন্য সকল ধরনের ক্রিকেট ও ২ বছরের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন এই অলরাউন্ডার। বাজিকরদের সঙ্গে যোগাযোগ ও এ বিষয়ে দুর্নীতি বিরোধী কমিশনকে না জানানোয় এই নিষেধাজ্ঞা এসেছিল সাকিবরে ওপর।

টাইগার অধিনায়ক তার দুইবার নিষিদ্ধ হওয়ার সময়কে একজন রাজনীতিবিদের জেলে বন্দী থাকার সঙ্গে তুলনা করেছেন। সাকিব বলেন, “যদি আমি পলিটিশয়ান হতাম, জেলে গেলে যেমন অবস্থা হয় বা একটা সাধারণ মানুষ যদি জেলে যায়, তার জন্য যে জিনিসটা হয় আমার কাছে ক্রিকেট না খেলাটা তেমন অবস্থা। সেদিক থেকে আমার জীবনে দু’বার এমন অবস্থা হয়েছে। তাই আমি বলব এই দুটি সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং টাইম আমার ক্যারিয়ারে।”

সাক্ষাৎকারে দ্বিতীয় প্রশ্নের রাফসান জানতে চান নিজের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে পাগলাটে মুহূর্ত কোনটি? জবাবে এই অলরাউন্ডার হেসে বলেন, “আমি তো অনেক কিছুই করি যেটা পাগলামি হয়ে যায়। যেমন- খেলার ভেতর স্ট্যাম্পে লাথি মেরে দিয়েছি। আন্তর্জাতিক ম্যাচ চলাকালীন খেলোয়াড়দের তুলে আনতে গিয়েছি। আমি এই দুটোকে মোটামুটি পাগলামির ভেতর রাখব।”

উপস্থাপকের তৃতীয় প্রশ্নে সাকিবের কাছে জানতে চান তার স্মরণীয় মুহূর্ত কোনটি? টাইগার অধিনায়ক বলেন, “একদম যদি স্মরণীয় কিছু বলি তাহলে বলবো ২০০৭ বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে জয়টা। কারণ ওই সময় কেউ আশাই করেনি আমরা ভারতের সঙ্গে জিততে পারি। যখন ভারত ছিল ফেভারিটদের একজন। তাই ওদের (ভারত) সঙ্গে জয়টা আমাদের কাছে অকল্পনীয়ই ছিল। প্রথম বিশ্বকাপে জয়ের স্মৃতি ছিল। তাই সেটাই এখনো আমার কাছে অনেক ভালো একটা স্মৃতি। আরেকটি যদি বলি তাহলে ২০১৯ বিশ্বকাপে আমার নিজের পারফরম্যান্সের জন্য।”

সাক্ষাৎকারে সবশেষ প্রশ্নে রাফসান জানতে চান সাকিব ব্যতিত বাংলাদেশ দলের মধ্যে স্টাইলিশ খেলোয়াড় কে। উত্তরে সাকিব বলেন, “জাতীয় দলে তো দেখি সবাই খুব ফ্যাশনেবল। সবাই ফ্যাশন করার চেষ্টা করে। আমার মতে সেটা তাসকিন।”

Link copied!