• ঢাকা
  • রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১,

ইনজুরি মুক্ত রাখতে নিউজিল্যান্ড সিরিজে দলে থাকবে বেশ কিছু পরিবর্তন


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১০, ২০২৩, ০৪:১৯ পিএম
ইনজুরি মুক্ত রাখতে নিউজিল্যান্ড সিরিজে দলে থাকবে বেশ কিছু পরিবর্তন
নিউজিল্যান্ড সিরিজ নিয়ে কথা বলেন সাকিব আল হাসান। ছবি : সংগৃহীত।

বিশ্বকাপকে সামনে রেখে সেরা টিম কম্বিনেশন বের করার জন্য নানা পরীক্ষা চালাচ্ছে বাংলাদেশ। এশিয়া কাপের সব ম্যাচে আনা হয়েছে একাদশে পরিবর্তন। ব্যাটিং অর্ডারেও ছিল পরিক্ষা-নীরিক্ষা। রাতা-রাতি লোয়ার মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মেহেদি হাসান মিরাজ হয়ে গেলেন ওপেনার। দলে জায়গা পাবার পর লিটন হয়ে যায় ওয়ান ডাউন ব্যাটসম্যান। পরিবর্তনের এই ধারাবাহিকতা চলবে নিউজিল্যান্ড সিরিজেও। এমনটাই জানান সাকিব আল হাসান।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেন, “নিউজিল্যান্ড সিরিজে তিনটি ম্যাচ আছে। সেখানে আমরা কিছু জিনিস দেখব। সবারই সুযোগ আছে খেলার। তবে এশিয়া কাপে যারা খেলেছে, তাদের মধ্যে যারা বিশ্বকাপে নিশ্চিত যাবে, তাদের বিশ্রাম থাকতে হবে বলে আমি মনে করি। প্র্যাকটিস ম্যাচ, ট্রাভেলিং মিলিয়ে অনেক বড় সফর বিশ্বকাপে। কারও ইনজুরি হলে সমস্যা হবে। আমাদের হাতে ভালো বিকল্প নেই। সবার ফিট থাকাটা খুব জরুরি। এবাদত নেই, আমি আশা করব চার পেসারই যেন ফিট থাকে।”

বিশ্বকাপের আগে ব্যাটিং নিয়েই যেন ভুগতে হচ্ছে বেশি। এশিয়া কাপে ব্যর্থ হবার মূল কারণই ব্যাটারদের রানখরা। এই নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন সাকিব নিজেও। টাইগার অধিনায় বলেন, “ব্যাটিং নিয়ে অবশ্যই আমরা চিন্তিত। বেশ কিছুদিন ধরেই আমরা ভালো ব্যাটিং করছি না। সে জায়গাগুলো দেখার এবং চিন্তা করার আছে। বিশ্বকাপের আগে এই টুর্নামেন্ট খুবই কাজে দিয়েছে। রিয়েলিটি চেকটা দরকার ছিল আমাদের। “

সাকিব এটাও মেনে নিয়েছেন বড় টুর্নামেন্ট আসলে দলের উপর চলে পরীক্ষা-নিরীক্ষা। মি.৭৫ বলেন, “দ্বিপক্ষীয় সিরিজে আমরা সব সময়ই ভালো খেলি। বলতে পারবেন না এসব সিরিজে আমরা কখনো খারাপ দল ছিলাম। আমাদের বড় পরীক্ষাগুলো হয় এ রকম বড় টুর্নামেন্টগুলোতে, যেখানে আমরা কখনোই আহামরি কিছু করি না। খেয়াল করলে দেখবেন, ২০০৭ বিশ্বকাপে তিনটি ম্যাচ জিতেছি, ২০১১–এর বিশ্বকাপে তিনটি জিতেছি, ২০১৫ বিশ্বকাপে তিনটি জিতেছি, ২০১৯ বিশ্বকাপেও তিনটি ম্যাচই জিতেছি।”

সাকিব আরও বলেন, “আমাদের ইতিহাস নেই বড় টুর্নামেন্টে ভালো করার। যদিও এশিয়া কাপে দু–তিনবার ফাইনাল খেলেছি, তবে জিতলে আরও ভালো হতো। গত ছয় মাসে আমাদের ব্যাটিং খারাপ হচ্ছে। ধারাবাহিকভাবেই নিচের দিকে যাচ্ছে। এটা নিয়ে কাজ করতে হবে। আসলে অনেকে অনেক কথা বলতে পারে। কিন্তু যখনই রিয়েলিটি চেকটা হয়, তখন কিন্তু আমরা ব্যর্থই হয়েছি। এটা ভালো যে বিশ্বকাপের আগে আগে এই টুর্নামেন্টটা হয়েছে। সবাই অবশ্যই চিন্তা করবে এই সমস্যাগুলো কীভাবে সমাধান করা যায়।”

Link copied!