• ঢাকা
  • শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১, ১০ শাওয়াল ১৪৪৫
এশিয়া কাপ

পাকিস্তানকে ২৬৭ রানের টার্গেট দিল ভারত, বৃষ্টির জন্য খেলা আপাতত বন্ধ


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২, ২০২৩, ০৮:২৯ পিএম
পাকিস্তানকে ২৬৭ রানের টার্গেট দিল ভারত, বৃষ্টির জন্য খেলা আপাতত বন্ধ
ইশান কিষাণ ও হার্দিক পান্ডিয়া। ছবি : সংগৃহীত

পাকিস্তানি পেসারদের গতির ঝড়ে শুরুতেই বড় হোঁচট খায় ভারত। তবে সেই চাপ দুর্দান্তভাবে সামাল দেন ঈশান কিষান ও হার্দিক পান্ডিয়া। এই দুই ব্যাটারের দায়িত্বশীল ইনিংসে লড়াকু পুঁজি পেয়েছে ভারত। শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৮.৫ ওভারে ২৬৬ রানে গুটিয়ে যায় রোহিত শর্মার দল।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানি বোলারদের ওপর ব্যাট হাতে শাসন করতে ব্যর্থ হয় ভারতীয় ব্যাটাররা। ম্যাচ শুরুর কিছুক্ষণ পরেই বৃষ্টির কারণে মাঠ ছাড়তে হয় দুদলকে। বৃষ্টির আগে বিনা উইকেটে ভারতের সংগ্রহ ছিল ১৫ রান।

তবে, বৃষ্টির পরই পাকিস্তান বোলারদের তান্ডব চলে। পাকিস্তানি বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ব্যাটিং পাওয়ার প্লেতে ৪৮ রান তুলে ভারত। কিন্তু দলটি হারায় ৩ উইকেট।

পাকিস্তানের হয়ে উইকেটে নেয়ার কাজটা শুরু করেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। তার দারুণ এক ডেলিভারিতে রোহিতকে বোল্ড করেন আফ্রিদি। সাজঘরে ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে এসেছে ২২ বলে ১১ রান।

রোহিতের বিদায়ের পর উইকেটে বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি বিরাট কোহলি। সপ্তম ওভারের তৃতীয় বলটি স্টাম্পের ওপর রেখেছিলেন আফ্রিদি, সেখানে আড়াআড়ি ব্যাটে খেলতে চেয়েছিলেন কোহলি। কিন্তু টাইমিং হয়নি, ইনসাইড এজ হয়ে লেগ স্টাম্প উপড়ে গেছে। ৪ রানের বেশি করতে পারলেন না এই অভিজ্ঞ ব্যাটার।

এরপর আফ্রিদির সঙ্গে উইকেট নেয়ার তালিকায় যোগ দেন হারিস রউফ। হারিস রউফের করা পাওয়ার প্লের শেষ ওভারের, পঞ্চম বলটি খানিকটা খাটো লেন্থে ছিল, সেখানে পুল করতে গিয়ে ভুল করে বসেন শ্রেয়াস আইয়ার। মিড উইকেটে ফখর জামানের হাতে ধরা পরার আগে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৯ বলে ১৪ রান। এরপর দেখে শুনে খেলতে থাকা শুভমান গিলকে ফেরান হারিস রউফ। দলীয় ৬৬ রানের সময় ১০ রান করে আউট হন গিল।

তবে এরপেরই ঘুরে দাঁড়ায় ভারত। দ্রুত রান তোলার চেষ্টা করেন ইশান কিষাণ ও হার্দিক পান্ডিয়া।  ইশান-পান্ডিয়ার ব্যাটে চড়ে চাপমুক্ত হয় ভারত। শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে দারুণ ভীত গড়ে তোলেন এই দুই ব্যাটসম্যান। দুজনই তুলে নেন অর্ধশতক। গড়ে তুলেন ১৩৮ রানের পার্টনারশীপ। অবশেষে ইশানকে ফেরান হারিস। ব্যক্তিগত ৮২ রান করে যখন ইশান আউট হন তখন ভারতের স্কোর ২০৪ রান।

হার্দিক যখন উইকেটে আসেন তখন ধুঁকছিল দল। ইষানের সঙ্গে দুর্দান্ত ইনিংস খেললেও সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে সাজঘরে ফিরেছেন হার্দিক। ৪৪তম আফ্রিদির স্লোয়ারেই বোকা বনেছেন হার্দিক। এক্সট্রা কভারে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৯০ বলে ৮৭ রান। মাত্র ১৩ রানের জন্য সেঞ্চুরি হাতছাড়া করেছেন হার্দিক।

ষষ্ঠ ব্যাটার হিসেবে হার্দিক যখন সাজঘরে ফেরেন তখন ভারতের সংগ্রহ ২৩৯ রান। এর সঙ্গে আর মাত্র ২৭ রান যোগ করতেই পরের ৪ উইকেট হারিয়েছে তারা। এদিন রবীন্দ্র জাদেজা-শার্দুল ঠাকুররা দাঁড়াতেই পারেননি। তাদের ব্যর্থতায় ৭ বল আগেই অলআউট হয়েছে দল। পাকিস্তোনের হয়ে আফ্রিদি নেন ৪ উইকেট। নাসিম ও রউফ নেন তিনটি করে উইকেট।

Link copied!