• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৮ শা’বান ১৪৪৫

কেইনকে বিক্রির বিষয়ে বার্য়ানের প্রস্তাবে রাজি টটেনহাম


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১০, ২০২৩, ০৫:৫৪ পিএম
কেইনকে বিক্রির বিষয়ে বার্য়ানের প্রস্তাবে রাজি টটেনহাম
ফাইল ছবি

রবার্ট লেভানদোভস্কি চলে যাবার পর বায়ার্ন মিউনিখের পরীক্ষিত কোনো স্ট্রাইকার নেই। তাই তারা অনেক দিন ধরেই টটেনহ্যাম স্ট্রাইকার হ্যারি কেইনকে দলে নেয়ার চেষ্টা করছে। তিন দফা বায়ার্নের  প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলো টটেনহাম। চতুর্থ দফায় এসে ইংলিশ ক্লাবটির সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছাল তারা। কেইনকে দলে নিতে বায়ার্নকে খরচ করতে হচ্ছে ১০০ মিলিয়ন ইউরো, বাংলাদেশি টাকায় যা এক হাজার ২০৭ কোটি টাকারও বেশি।

টটেনহ্যামের সঙ্গে বায়ার্ন মিউনিখের সমঝোতায় পৌঁছার খবরটি দিয়েছেন দলবদল বিষয়ক সাংবাদিক ফ্যাব্রিজিও রোমানো।

হ্যারি কেইন, গত এক দশক ধরে নিজের কাজটা ঠিকঠাক করে যাচ্ছেন এই স্ট্রাইকার। তবুও এখনও কোনো শিরোপার মুখ দেখেননি, দুর্ভাগাই বলতে হয় টটেনহ্যাম হটস্পারের এই ইংলিশ ফুটবলারকে।

২০১০-১১ মৌসুম থেকে শুরু। হ্যারি কেইন এখনও আছেন টটেনহ্যামে। মাঝে দুয়েকটা ক্লাবে ধারে খেলতে গেলেও টটেনহ্যামই তার আসল ঘর। ২০১৩-১৪ মৌসুম থেকে লিগে প্রতিবারই ২০টির বেশি গোল করছেন তিনি। ক্লাব ও জাতীয় দল; সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ৫৮৪ ম্যাচে ৩৫৪ গোল করেছেন কেইন, যার মধ্যে জাতীয় দলে ৮৪ ম্যাচে তার গোল ৫৮টি। কিন্তু তাতেও মেলেনি দলীয় সাফল্য, দলগতভাবে ব্যর্থ ইংল্যান্ড জাতীয় দলেও।

হ্যারি কেইনের সামনে প্রথম ট্রফি জেতার সুবর্ণ সুযোগ এসেছিল ২০১৪-১৫ মৌসুমে। সেবার কারাবো কাপের ফাইনালে উঠেছিল স্পার্সরা। কিন্তু চেলসির কাছে ২-০ গোলে হেরে শিরোপা হাতছাড়া হয় তাদের। টটেনহ্যাম কারাবো কাপের ফাইনালে উঠেছিল ২০২০-২১ মৌসুমেও, সেবার তারা হারে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে।

ইউরোপিয়ান ক্লাবগুলোর জন্য চির আরাধ্য ট্রফি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। সেখানেই শিরোপার অভাব ঘুচানোর সুযোগ এসেছিল কেইনের সামনে। ২০১৮-১৯ মৌসুমে স্বপ্নের এক যাত্রা শেষে ফাইনালে লিভারপুলের কাছে হারে তারা। বারবার দলীয় ব্যর্থতার পর ভাগ্য বদল করতে কেইনও এখন ক্লাব ছাড়তে চান। তবে সবকিছু নির্ভর করছে টটেনহ্যাম চেয়ারম্যান ড্যানিয়েল লেভির ওপর। তিনি চাইলেই কেবল কেইন দলবদল করতে পারবেন।

Link copied!