• ঢাকা
  • বুধবার, ২৬ জুন, ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১,

সাকিবের লড়াকু ব্যাটিংয়ে সিরিজ জয়  


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুলাই ১৮, ২০২১, ১০:০০ পিএম
সাকিবের লড়াকু ব্যাটিংয়ে সিরিজ জয়  

একসময় মনে হচ্ছিলো সিরিজ জয়ের জন্য আরেকটা শেষ ম্যাচ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে বাংলাদেশকে। কিন্তু জিম্বাবুয়ের আশাকে গুড়েবালি করে অসাধারণ, দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ম্যাচটা নিজের করে নিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। অপরাজিত ছিলেন ৯৬ রানে। এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করল বাংলাদেশ।

ব্যাট হাতে বোলিং অলরাউন্ডার সাইফুদ্দীন যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন সাকিবকে। দুইজনের অপরাজিত ৬৯ রানের জুটির মধ্যে সাইফুদ্দীনের ২৮ রান দলের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।   

হারারেতে সিরিজ জয়ের লক্ষ্য ব্যাট করতে নেমে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি টাইগার ব্যাটসম্যানরা। 

টাইগারদের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ও লিটন দাসের সাবধানী শুরু করেছিলেন। মাঝারী লক্ষ্যের দিকে দুই ব্যাটসম্যান ভালো আগালেও তামিমের আউটে সব এলোমেলো হয়ে যায়। লুক জঙ্গুয়ার বলে পয়েন্টের উপর দিয়ে উঠিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বাঁদিকে ঝাঁপিয়ে দারুণ এক ক্যাচ নিয়ে তামিমকে সাজঘরে পাঠিয়ে দেন সিকান্দার রাজা। দলীয় ৩৯ রানে ৩৪ বলে ২০ রান করে ফিরেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক ।

রান আউটের হাত থেকে বেঁচে যাওয়ার পরেও ক্রিজে বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি লিটন দাস। রিচার্ড এনগারাভাকে পুল করে টেইলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন এই ওপেনার। ৩৩ বলে ২১ রান করেছেন আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করা লিটন।

৪৬ রানে দুই উইকেট হারানোর পরে ক্রিজে আসেন মোহাম্মদ মিঠুন । এসেই আলগা শট খেলে মাধভেরের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন। দলকে বিপদ থেকে উদ্ধার করতে গিয়ে আরও বিপদে ঠেলে দিলেন। ১১ রানের মধ্য তিন উইকেট হারিয়ে বিপর্যস্ত টাইগাররা।

সাকিব- মাহমুদুল্লাহর ৫৫ রানের জুটি দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখালেও সাকিবকে একা করে আউট হন মাহমুদুল্লাহ। মুজারাবানির বলে উইকেট কিপারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ৩৫ বলে ২৬ রান করে আউট হন তিনি। দলীয় ১৩০ রানের মধ্যেই নেই পাঁচ ব্যাটসম্যান।

দুর্দান্ত খেলতে থাকা সাকিব সিকান্দার রাজার বলে চার মেরে নিজের ৪৯তম ফিফটি তুলে নেন। এর মাধ্যমে তৃতীয় বাংলাদেশী হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ হাজার রানের মালিক হন সাকিবের।

মাধভেরেকে স্লগ করতে গিয়ে ১৫ বলে ৬ রান করে মিডউইকেটে মায়ার্সের হাতে ধরা পড়েন মিরাজ। ঝুলিয়ে দেওয়া বলে ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে এসে খেলতে গিয়ে লাইন মিস করে স্টাম্পড হন আফিফ।

এর আগে টসে জিতে ব্যাট করে ২৪০ রানের সংগ্রহ পায় জিম্বাবুয়ে। জিম্বাবুয়ের পক্ষে মাদভেরে ৫৬, টেইলর ৪৬, মায়ার্স ৩৪ ও সিকান্দার রাজা করেন ৩০ রান।

বোলিংয়ে পেসার শরীফুল ইসলাম ৪৬ রানের বিনিময়ে নেন ৪ উইকেট। এছাড়া তাসকিন, সাইফুদ্দীন ও মিরাজ নেন একটি করে উইকেট এবং সাকিবের ঝুলিতে রয়েছে ২ টি উইকেট। 
 

Link copied!