• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১, ১০ মুহররম ১৪৪৫

শেয়ার কিনতে বাবার নাম বদলে ফেলেন সাকিব!


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২, ১০:০৩ এএম
শেয়ার কিনতে বাবার নাম বদলে ফেলেন সাকিব!
সাকিব আল হাসান

শেয়ার মার্কেটে লাইসেন্স ক্রয়সংক্রান্ত একটি বিষয়ে সাকিব আল হাসানের নাম শোনা যাচ্ছে কয়েক দিন ধরে। এবার এ বিষয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে। বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার শেয়ার পেতে নিজের বাবার ভুয়া নাম ব্যবহার করেছেন।

সাকিবের বাবার নাম খন্দকার মাশরুর রেজা। কিন্তু শেয়ারবাজারে ব্যবসা করার জন্য মোনার্ক হোল্ডিংসের অফিশিয়াল নথিতে সাকিব তার বাবার নাম ব্যবহার করেছেন কাজী আবদুল লতিফ।

ইংরেজি দৈনিক ডেইলি সানের অনুসন্ধানে উঠে এসেছে সাকিবের বাবার ভুয়া নাম ব্যবহারের তথ্য। মোনার্ক হোল্ডিংসের একটি নথিতে দেখা গেছে, সাকিব খন্দকার মাশরুর রেজার পরিবর্তে তার বাবার নাম কাজী আবদুল লতিফ বলে উল্লেখ করেছেন।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবায়েত উল ইসলাম অবশ্য অভিযোগটি সরাসরি নাকচ করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, “ন্যাশনাল আইডি কার্ডের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের তথ্য যাচাই করা হয়। সুতরাং পিতার ভুয়া নাম ব্যবহারের সুযোগ নেই। তিনি আমাদের শুভেচ্ছা দূত। দয়া করে তার ক্ষতি করবেন না।”

বাবার ভুয়া নামের বিষয়ে সাকিবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “যদি কোনো ভুল হয় তবে কোম্পানি সংশোধন করবে।”

গত বছর বিএসইসির শুভেচ্ছা দূত থাকাকালীন ফেব্রুয়ারিতে সাকিব তার ব্রোকারেজ ফার্ম ‘মোনার্ক হোল্ডিংস’-এর অনুমোদন পান। শেয়ার কারসাজির দায়ে দণ্ডিত আবুল খায়ের হিরোর স্ত্রী কাজী সাদিয়া হাসান মোনার্ক হোল্ডিংসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং জাভেদ এ মতিন ও আবুল কালাম মাতবর প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক।

এর আগেও সাকিবের বিরুদ্ধে জুয়ার সাইটে জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে। এখানেই শেষ নয়। ওয়ান ব্যাংক, ফরচুন সুজ এবং এনআরবিসি ব্যাংকের শেয়ার লেনদেনের অনিয়মের সঙ্গে সাকিবের প্রতিষ্ঠান জড়িত। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সাম্প্রতিক তদন্তে এমনটাই উঠে এসেছে। সাকিব এসব কোম্পানির প্রায় ১০.৪ মিলিয়ন শেয়ার লেনদেনে জড়িত ছিলেন।

তাছাড়া ওয়ান ব্যাংক শেয়ারের শীর্ষ আট ক্রেতার মধ্যে সাকিবের নাম পাওয়া গেছে। তদন্তে সাকিবের ব্রোকারেজ হাউস থেকে ধারাবাহিক লেনদেনের সুস্পষ্ট  প্রমাণ আছে যা সিকিউরিটিজ অ্যাক্ট অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক আবুল খায়ের হিরো, তার বাবা ও স্ত্রীকে ৩৫.৫ মিলিয়ন টাকা জরিমানা করলেও অজ্ঞাত কারণে সাকিব আল হাসানকে শাস্তির বাইরে রাখা হয়। অথচ মোনার্ক হোল্ডিংসের চেয়ারম্যানই দেশের শীর্ষ এই তারকা।

Link copied!