• ঢাকা
  • সোমবার, ২৪ জুন, ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১, ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বিতর্কের পরেও হ্যাট্রিক শিরোপা আবাহনীর


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুলাই ১৫, ২০২১, ০৭:২৪ পিএম
বিতর্কের পরেও হ্যাট্রিক শিরোপা আবাহনীর

গতকাল শনিবার লিগ পর্বের ম্যাচ যেন অলিখিত ফাইনাল হিসেবে খেললো আবাহনী লিমিটেড এবং প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। শেষ ওভারে নো বল না দেয়ার বিতর্কে ১৬ রান তুলতে ব্যর্থ হয় অলক কাপালির দল। ফলে ৮ রানের জয়ে টানা তিনটি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জয়ের আনন্দে ভেসেছে আবাহনী। 

মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ১৫০ রান সংগ্রহ করতে সমর্থ হয় আবাহনী লিমিটেড। মুশফিকুর রহিম ইনজুরির কারণে না থাকায় এই রান করাই কঠিন ছিলো লিটন দাসদের জন্য। প্রথমে নেমেই মোহাম্মদ নাঈম শেখের উইকেট, এরপর সেই মোস্তাফিজুর রহমানের বল লিটনের প্যাডে লাগায় জোরালো আবেদন।

কিন্তু নিশ্চিত সেই লেগ বিফোর উইকেটের আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার তানভির আহমেদ। পরে ১৩ বলে তিনি ১৯ রান করে বিদায় হন। ছোট ছোট জুটি গড়ে এগিয়েছে আবাহনী। এর মধ্যে মোসাদ্দেক হোসেন এবং নাজমুল হোসেন শান্তর ৬১ বলে ৭০ রান উল্লেখযোগ্য। এরপর ব্যাট হাতে সাইফউদ্দিনের ১৩ বলে ২১ রানের ইনিংস আবাহনীকে লড়াকু সংগ্রহ এনে দেয়। 

জবাবে ব্যাট করতে নেমে আবাহনীর শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। রনি তালুকদারকে নিজের প্রথম ওভারে ফেরানোর পরের ওভারে অধিনায়ক এনামুল হককেও ফিরিয়েছেন তিনি। ওপেনার রুবেল মিয়া আশা জাগালেও ৪৩ বলে মাত্র ৪১ করেছিলেন। সাইফ চার ওভারে চার উইকেটের বিনিময়ে ৩৬ রান দিয়েছেন।

এরপর শেষ ৩ ওভারে সমীকরণ দাঁড়ায় ৪১ রানের। সেটি ঝড়ো ইনিংসে মাত্র শেষ ওভারে ১৬ রানে নামিয়ে আনেন অলক কাপালি। প্রথম বলে উচ্চতার কারণে নির্ঘাত নো বলের সিদ্ধান্ত দেননি আম্পায়ার তানভির। সেই ওভারে পরে একটি ওভার বাউন্ডারি এলেও শেষ পর্যন্ত তার ১৭ বলে ৩৪ রানের ক্যামিও বৃথা যায়। ফলে ৮ রানে জয় পেয়েছে আবাহনী। 

ব্যাটে-বলে ভূমিকা রেখে অলিখিত ফাইনালের দিনে ম্যাচসেরা হয়েছেন সাইফউদ্দিন।

Link copied!