• ঢাকা
  • বুধবার, ২৪ জুলাই, ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৮ মুহররম ১৪৪৫

প্রথম বিশ্বকাপেই সেরা একাদশে বাংলাদেশি সালমা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ৪, ২০২২, ০৪:৩৮ পিএম
প্রথম বিশ্বকাপেই সেরা একাদশে বাংলাদেশি সালমা
ছবি সংগৃহীত

এবারই প্রথম নারীদের ওয়ানডে বিশ্বকাপের আসরে নাম লিখিয়েছিল বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টে পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় ছাড়া হেরে যাওয়া প্রায় সব ম্যাচেই তীরে এসে তরী ডুবেছে টাইগ্রেসদের। এবার বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পদচারণার স্বীকৃতি পেলেন স্পিন অলরাউন্ডার সালমা খাতুন। আইসিসি কতৃক বিশ্বকাপের সেরা একাদশে জায়গা করে নিয়েছেন তিনি।

সালমা বাংলাদেশ দলের একজন সিনিয়র সদস্য। তিনিই দলকে এগিয়ে নেওয়ায় অগ্রগামী ভূমিকায় ছিলেন। বিশ্বকাপেও দুর্দান্ত অফ স্পিনে ৭ ম্যাচে সালমার শিকার ১০ উইকেট। টুর্নামেন্টে ২০ ওভারের বেশি বল করা বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে কম রান দিয়েছেন সালমা।

অস্ট্রেলিয়ার মেগ ল্যানিং তার দলকে শিরোপা জিতিয়ে সেরা একাদশের অধিনায়ক নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ব্যাট হাতে ৩৯৪ রান নিয়েছেন। টুর্নামেন্ট সেরা অ্যালিসা হিলিসহ চার অস্ট্রেলিয়ান এই দলে জায়গা করে নিয়েছেন। এই উইকেটরক্ষক কাম ব্যাটার নকআউট পর্বে অজিদের হয়ে দুইটি সেঞ্চুরি পেয়েছেন। এর মধ্যে ফাইনালে ১৩৮ বলে ১৭০ রানের অনবদ্য ইনিংস উপহার দিয়ে ম্যাচসেরাও নির্বাচিত হয়েছেন।

অজি সহ-অধিনায়ক রাচেল হাইনেস টুর্নামেন্টে ৪৯৭ রান করেন। তিনি অজিদের ওপেনিংয়ে হিলির সাথে নামেন। প্রোটিয়াকে সেমি ফাইনালে পৌঁছানোর নায়ক ২২ বছর বয়েসী লরা ওলভার্ট পাঁচটি অর্ধশতক নিয়ে আছেন সেরা একাদশে।

অলরাউন্ডার ন্যাট সেভিয়ার ফাইনালে ইংল্যান্ডের পক্ষে অপরাজিত ১৪৮ রান সহ চার উইকেটে অবদান রাখেন। তিনি ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হিসেবে ৪৩৬ রান করেন। বেথ মুনি অস্ট্রেলিয়ার মিডল অর্ডারে ৩৩০ রানের পাশাপাশি দুটি চমৎকার ক্যাচ নিয়ে আছেন সেরা একাদশে।

হেইলি ম্যাথুসই একমাত্র ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড় যিনি বিশ্বকাপের পর দলে জায়গা পেয়েছেন। তিনি ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সর্বোচ্চ ২৬০ রান করেন। প্রোটিয়া আরেক অলরাউন্ডার ম্যারিজানে কেপ বল হাতে ১২ উইকেট এবং ব্যাট হাতে ২০৩ রান করেন। দুইটি ম্যাচে ম্যাচসেরাও নির্বাচিত হন তিনি।

ইংল্যান্ডের সোফি একলেস্টোন ২১ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্টে সেরা বোলার। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সেমিফাইনালে তার ৩৬ রানের বিনিময়ে ৬ উইকেট ছিল বিশ্বকাপের সেরা বোলিং পারফরম্যান্স। দক্ষিণ আফ্রিকার শাবনিম ইসমাইল ১৪ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করেন। বাংলাদেশের অফ-স্পিনার সালমা খাতুন ১০ উইকেট নিয়ে একাদশে জায়গা পেয়েছেন। ইংল্যান্ডের চার্লি ডিন আছেন দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে।

আইসিসির সেরা একাদশ: লরা ওলভার্ড (দক্ষিণ আফ্রিকা), অ্যালিসা হিলি (অস্ট্রেলিয়া), মেগ ল্যানিং (অধিনায়ক, অস্ট্রেলিয়া), রাচেল হাইনেস (অস্ট্রেলিয়া), ন্যাট সেভিয়ার (ইংল্যান্ড), বেথ মুনি (অস্ট্রেলিয়া), হেইলি ম্যাথুস (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), ম্যারিজানে কেপ (দক্ষিণ আফ্রিকা), সোফি একলেস্টোন (ইংল্যান্ড), শাবনিম ইসমাইল (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও সালমা খাতুন (বাংলাদেশ)।

Link copied!