• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ জুলাই, ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৪ মুহররম ১৪৪৫

ইমাম-বাবরের সেঞ্চুরিতে পাকিস্তানের রেকর্ড গড়ে জয়


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ১, ২০২২, ০২:৩৭ এএম
ইমাম-বাবরের সেঞ্চুরিতে পাকিস্তানের রেকর্ড গড়ে জয়
ছবি- সংগৃহীত

জয়ের জন্য ৩৪৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাটাররা যখন ক্রিজে নামেন, তখন ওয়ানডে ক্রিকেটে পাকিস্তানের সামনে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের সমীকরণ। কিন্তু ওপেনার ইমাম-উল-হক ও অধিনায়ক বাবর আজমের সেঞ্চুরিতে অবিশ্বাস্য কাণ্ডই ঘটিয়ে বসেছে স্বাগতিকরা। অজিদের পাহাড়সম লক্ষ্য পাড়ি দিয়ে ম্যাচ জিতে নিয়েছে ৬ উইকেটের ব্যবধানে। এই জয়ে সিরিজে ১-১ তে সমতায় ফিরল বাবর আজমের দল। 

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টস জিতে পাকিস্তান অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায়। মাত্র ১ রানেই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ ফিরে গিয়ে পাকিস্তানকে উচ্ছ্বাসে ভাসায়। তবে এই উচ্ছ্বাস কালো মেঘে ঢেকে যায়। কারণ আরেক ওপেনার ট্রেভিস হেড ও বেন ম্যাকডারমট দুজনই পাকিস্তান বোলারদের বিপক্ষে মারমুখী হয়ে খেলতে থাকেন।

ট্রেভিস ৮৯ ও বেন ম্যাকডারমট ১০৪ রান করে ফিরে যাবার পর টর্নেডো গতিতে ল্যাবুসচেন করেন ৫৯ রান। এছাড়া  স্টয়নিসও ৪৯ রান করেন। 

অজিদের ১৬৩ রানে দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটে ট্রেভিসের আউটের মাধ্যমে। মারনাস ল্যাবুসচেন ও মার্কোস স্টয়নিসও চমৎকার খেলেন।

বাকি ব্যাটারদের কেউই তেমন ভূমিকা না রাখলেও অজিদের ইনিংস ৩০০ পার করতে তেমন অসুবিধাই হয়নি। ফলে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩৪৮ রানে থামে অজিদের ইনিংস।

বোলিংয়ে স্বাগতিকদের শাহিন শাহ আফ্রিদি একাই অজিদের ৪ উইকেট তুলে নেন। এছাড়া মোহাম্মদ ওয়াসিম পান দুই উইকেট।

জবাবে রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই দুর্দান্ত সূচনা এনে দেন পাক দুই ওপেনার ইমাম-উল-হক ও ফখর জামান। বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে এই দুই ওপেনার  মিলে গড়েন ১১৮ রানের বিশাল জুটি। ৬৭ রান করা ফখর স্টোইনিসের বলে বোল্ড হয়ে আউট হওয়ার পর বাবর আজমের সঙ্গে ১১১ রানের জুটি গড়েন ইমাম।

৯৭ বলে ৬ বাউন্ডারি আর ৩ ছক্কায় ১০৬ রান করে ইমাম-উল হক আউট হয়ে যান। এটি তার ক্যারিয়ারের নবম এবং সিরিজে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি। 

জয় থেকে ৪০ রান দূরে থাকতে দলীয় ৩০৯ রানে আউট হন পাক অধিনায়ক বাবর। ৮৩ বলে ১১টি বাউন্ডারি এবং ১ ছক্কায় ১১৪ রান করেন তিনি।

এরপর মোহাম্মদ রিজওয়ানও ক্যাচ দেন সুইপশনের হাতে। ইমামের মতো রিজওয়ানকেও ফেরান জাম্পা। এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান আউট হন ২৩ রান করে। পরে খুশদিল শাহ ১৭ বলে ২৭ এবং ইফতিখার আহমেদ ৭ বলে ১১ রান করে পাকিস্তানকে জয় এনে দেন।

বোলিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে অ্যাডাম জাম্পা ২ টি উইকেট পান। এছাড়া ন্যাথান এলিস ও স্টোইনিস পান একটি করে উইকেট। 

ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন ক্যারিয়ারের ১৫তম সেঞ্চুরি হাঁকানো সাদা বলে বিশ্বসেরা ব্যাটার বাবর আজম। 

Link copied!