• ঢাকা
  • রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৪ শা’বান ১৪৪৫

যাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে, তার পক্ষে কাজ করবেন : প্রধানমন্ত্রী


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: আগস্ট ৭, ২০২৩, ০৮:১৮ এএম
যাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে, তার পক্ষে কাজ করবেন : প্রধানমন্ত্রী
ছবি : বাসস।

তৃণমূল নেতাদের নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, “সামনে নির্বাচন। এই নির্বাচনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করতে হবে। আমি প্রতি ছয় মাস পরপর জরিপ করি। সেই জরিপের ভিত্তিতে মনোনয়ন দেওয়া হবে। যাকেই মনোনয়ন দেওয়া হবে, তার পক্ষে কাজ করবেন।”

রোববার (৬ আগস্ট) গণভবনে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় সমাপনী বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

সকাল সাড়ে ১০টায় সভা শুরু হয়ে বেলা সোয়া ২টায় খাবার ও নামাজের জন্য বিরতি দেওয়া হয়। বিকেল ৩টা ৫ মিনিটে সভা শুরু হয়ে সোয়া ৫টার দিকে শেষ হয়। এতে তৃণমূল থেকে আসা প্রায় ৩০ জন নেতা-নেত্রী বক্তব্য দেন।

সূচনা বক্তব্যে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “জনগণের শক্তিই হচ্ছে আওয়ামী লীগের শক্তি। আওয়ামী লীগের কোনো প্রভু নেই, দেশের জনগণই আওয়ামী লীগের প্রভু। জনগণের কাছেই আমরা দায়বদ্ধ। জনগণের কল্যাণে আমরা কাজ করি। আমরা কতটুকু করতে পেরেছি এবং ভবিষ্যতে কী করব; তা আমরা শুধু জনগণকে বলি, অন্য কাউকে নয়।”

আগামী নির্বাচনে আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, “বাংলাদেশের মানুষকে আমি আহ্বান করব, তারা কি চান বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা নিয়ে এগিয়ে চলুক? জনগণ ভোটের মালিক, তারা যদি চান উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা নিয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে, প্রতিষ্ঠিত হবে, তাহলে আওয়ামী লীগকে নৌকা মার্কায় ভোট দিতে হবে। আওয়ামী লীগ ভোট পেলেই এটা সম্ভব হবে।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “কতিপয় লোক আছে যারা চোর, দুর্নীতিগ্রস্ত ও খুনি। আসলে জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়া সকলেই খুনি। দেশের মানুষ তাদের হাতে নিরাপদ নয়, দেশও নিরাপদ নয়। তাই আপনাদের (দলের তৃণমূল নেতা ও জনপ্রতিনিধি) প্রতি আমার অনুরোধ, ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগ যেসব উন্নয়নকাজ করেছে তার সবগুলো জনগণের কাছে তুলে ধরতে হবে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে জনগণের পাশে থাকে, জনগণ উপকৃত হয়। সকলের জন্য আমরা কাজ করব, এটাই আমাদের প্রতিজ্ঞা। জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা আমরা গড়ে তুলব।”

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। প্রথম অধিবেশনের পরিচালনা করেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ এবং উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ আবদুল আউয়াল শামীম। সভায় শোক প্রস্তাব পাঠ করেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া। এরপর দীর্ঘ সময় সারা দেশের তৃণমূল নেতাদের কথা শোনেন প্রধানমন্ত্রী। দ্বিতীয় অধিবেশন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা নিজেই পরিচালনা করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আজকে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। সারা বিশ্বের কাছে মর্যাদা পেয়েছে। কিন্তু এটা আমাদের ধরে রাখতে হবে। ধরে রেখেই আরও এগিয়ে যেতে হবে। মানুষের জীবনমান আজ উন্নত হয়েছে। মানুষের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি, ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি এগুলো তো আওয়ামী লীগ সরকার করে দিয়েছে। অন্য কেউ করেনি, কোনো দিন করবেও না।”

মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে তার সরকারের নানামুখী পদক্ষেপ বাস্তবায়নের প্রসঙ্গ তুলে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, “আজ শতভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পেয়েছে। কই এর আগে তো বহু সরকার ছিল, তারা করতে পারেনি কেন? তারা ক্ষমতায় থেকে শুধু লুটপাট করেই খেয়েছে। তারা দেবে কোথা থেকে? আর আওয়ামী লীগ মানুষকে দিতে এসেছে। আজকে প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ। বিশ্বব্যাপী গ্যাস ও কয়লার দাম বেড়েছে, যার কারণে কিছুদিন আমাদের সমস্যা হয়েছে। আমরা নিজেদের গ্যাসফিল্ড থেকে গ্যাস উত্তোলন করছি। গ্যাস ব্যবহার করছি। কাজেই আমরা আমাদের সাধ্যমতো কাজ করে যাচ্ছি।”

অবকাঠামোগত উন্নয়ন প্রসঙ্গে সরকারপ্রধান বলেন, “একই দিনে শত সেতু আর একই দিনে শত সড়ক উদ্বোধনের এই রেকর্ড আর কেউ করতে পারেনি। বাংলাদেশ করতে পেরেছে। পদ্মা সেতু দুর্নীতির কথা উঠেছিল, চ্যালেঞ্জ দিয়েছিলাম। সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে চ্যালেঞ্জ নিয়ে নিজেদের টাকায় পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছি। আজকে সারা দেশের সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলের যোগাযোগ হয়ে গেছে। আর নিজেদের অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করার এই একটা সিদ্ধান্ত আন্তর্জাতিকভাবে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি সারা বিশ্বে উজ্জ্বল করেছে। যে না, বাংলাদেশ পারে। আমরা পারি।”

জাতীয় বিভাগের আরো খবর

Link copied!