• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১, ৮ শাওয়াল ১৪৪৫

সংসদে উঠল সাইবার নিরাপত্তা বিল


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৬, ২০২৩, ০৮:৫৫ এএম
সংসদে উঠল সাইবার নিরাপত্তা বিল

জাতীয় সংসদে বাংলাদেশ সাইবার নিরাপত্তা বিল, ২০২৩ উত্থাপন করা হয়েছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জাতীয় সংসদে মঙ্গলবার (৫ সেপ্টেম্বর) বিলটি উত্থাপন করেন।

বিলটির উত্থাপনকালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, আধুনিক বাংলাদেশের স্থপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের আর্কিটেক্ট ও স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ‘রূপকল্প-২০২১ ডিজিটাল বাংলাদেশ সফল বাস্তবায়নের অভিজ্ঞতার আলোকে ২০৪১ সালে উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষে প্রধানমন্ত্রী ‘স্মার্ট বাংলাদেশ ২০৪১’ ঘোষণা করেন। প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নের লক্ষে সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং ডিজিটাল বা ইলেকট্রনিক মাধ্যমে সংঘটিত অপরাধ শনাক্তকরণ, প্রতিরোধ, দমন ও এসব অপরাধের বিচার এবং আনুষঙ্গিক বিষয়ে নূতন একটি আইন প্রণয়ন করা প্রয়োজন। তাই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাইবার নিরাপত্তা আইন ও এ সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠানের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮’ রহিতক্রমে বাস্তবতার নিরিখে ‘সাইবার নিরাপত্তা আইন, ২০২৩’ প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সাইবার কার্যক্রমের বিস্তৃতির সাথে সাথে সাইবার অপরাধের প্রবণতাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই আইনের আওতায় বিভিন্ন দেশের সাইবার নিরাপত্তা সংস্থাসমূহের মধ্যে সমন্বয়সাধন, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা প্রদান এবং সাইবার ঝুঁকি ও হুমকিসমূহের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে সতর্কীকরণ ও প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে দেশের সাইবার স্পেসের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণই এই আইনের অন্যতম উদ্দেশ্য।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ এর অর্জিত সাফল্যসমূহকে ধরে রাখা, টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রতিটি সেক্টরের ডিজিটাইজেশন কার্যক্রমের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে ‘সাইবার নিরাপত্তা আইন, ২০২৩’ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

পরে তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রীর প্রস্তাব অনুযায়ী জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বিলটি অধিকতর পরীক্ষা নিরীক্ষা করে ৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট প্রদানের জন্য ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে প্রেরণ করেন।

সূত্র : বাসস।

Link copied!