• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১, ১১ মুহররম ১৪৪৫

‘ক্ষমতায় থাকতে নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে সরকার’


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: আগস্ট ২০, ২০২২, ০৩:৪১ পিএম
‘ক্ষমতায় থাকতে নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে সরকার’

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচেলেটের বক্তব্যে সরকারের গায়ে বিচুটি লেগেছে। হাইকমিশনার বলেছেন মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে স্বাধীন কমিশনের অধিনে স্বচ্ছ তদন্ত চায়। কিন্তু সরকার তা করতে দেবে না।”

তিনি আরও বলেন, “জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে তারা নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে। দেশের মানুষ যখন নিজেদের স্বাধীন বলতে গর্ব বোধ করেন। তখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন ভারত তাদের টিকিয়ে রাখছে। এটাই প্রমাণ করে বর্তমান সরকার টিকে আছে ভারতের আনুকূল্যে।”

শনিবার (২০ আগস্ট) সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইউট্যাব) আয়োজিত মানববন্ধনে বিএনপি মহাসচিব এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “আসন্ন নির্বাচনের কারণে মিশেল ব্যাচেলেটকে সরকার দেশে আসার অনুমিত দিয়েছে। এর আগে জাতিসংঘের মানবধিকারবিষয়ক প্রতিনিধিদল বাংলাদেশে আসতে চেয়েছিল তাদের আসার অনুমতি দেওয়া হয়নি। সামনে সংসদ নির্বাচন তাই এবার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাদের প্রত্যেকটা প্রোগ্রাম মনিটর করা হয়েছে, গুম হওয়া পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে দেওয়া হয়নি।”

দেশের সাধারণ মানুষ না খেয়ে আছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, “সাধারণ মানুষ অনেক কষ্টে আছে, অনেক মানুষ না খেয়ে আছে। যারা রাস্তায় নামতে পারে না কারও কাছে চাইতে পারে না, নিজের অভাবের কথা বলতে পারে না, প্রতিবাদ করতে পারে না, তারা সবচেয়ে বেশি কষ্টে আছে।”

বিএনপি মহাসচিব বলেন, “জ্বালানির দাম বৃদ্ধি, বিদ্যুতের লোডশেডিং এসবের পাশাপাশি কয়েক দিন ধরে পত্রিকায় খবর আসছে কৃষকরা সারের জন্য রাস্তা অবরোধ করেছে। সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ এই সরকারের বিভিন্ন নিবর্তনমূলক সিদ্ধান্তের কারণে। জীবনধারণ অসম্ভব হয়ে পড়েছে।”

আওয়ামী লীগ যতবারই ক্ষমতায় এসেছে বর্গিদের ভূমিকা পালন করেছে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, “লুটেরা এলিট শ্রেণির সবাই ভালো আছে। এরা সবাই আওয়ামী লীগের নেতা। সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্ছিষ্ট ভোগী কিছু শিক্ষক বুদ্ধিজীবী। টক শোতে তাদের বক্তব্যে মনে হয় বেহেশতে আছি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য অমূলক নয়। লুটেরা সরকার, দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। এটা প্রমাণ করছে তারাই।”

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, নজিরবিহীন লোডশেডিং, জ্বালানি মূল্যবৃদ্ধি এবং হত্যা, গুম, দমন-পীড়নের প্রতিবাদে এ মানববন্ধন হয়। আয়োজক সংগঠনের সভাপতি বিএনপির শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক ডক্টর ওবায়দুল ইসলাম মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন।

Link copied!