• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

বাখমুতে রাশিয়ার ২০ হাজার সেনা নিহত


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মে ২, ২০২৩, ১০:৩৩ এএম
বাখমুতে রাশিয়ার ২০ হাজার সেনা নিহত

ইউক্রেনের দোনেৎস্ক অঞ্চলের বাখমুতে যুদ্ধের মাত্রা বৃদ্ধির পর গত ডিসেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত ২০ হাজার রুশ সেনা নিহত এবং ১ লাখ রাশিয়ান আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। নিহতদের অধিকাংশ রুশ ভাড়াটে বাহিনী ওয়াগনারের যোদ্ধা।

মঙ্গলবার (২ মে) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে। এতে বলা হয়, সোমবার গোয়েন্দাদের এক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের মুখপাত্র জন কিরবি এ দাবি করেছেন। তবে গোয়েন্দারা কীভাবে এই প্রতিবেদনে তৈরি করেছে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি।

কিরবি বলেন, “নিহতদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই ভাড়াটে প্রাইভেট ওয়াগনার গ্রুপের সৈন্য। এদের অধিকাংশই রাশিয়ার কারাগারে থাকা মানুষজন। তাদেরকে বিভিন্নভাবে আকর্ষিত করে এই বাহিনীতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। যারা দীর্ঘদিন ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় বাখমুত শহরে হামলা চালিয়ে আসছিল। গত বছর থেকে ইউক্রেনের এই ছোট শহরটি দখলের জন্য ক্রমাগত গুলি ও বোমাবর্ষণ চালাচ্ছে তারা।”

তিনি আরও বলেন, “রাশিয়ার আক্রমণাত্মক মনোভাব গত কয়েক মাসের লড়াইয়ে তাদের অসাধারণ ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন করেছে। রাশিয়া তার সামরিক প্রচেষ্টা সত্ত্বেও ‘কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ’ কোনো অঞ্চল দখল করতে পারেনি। রাশিয়া তার সামরিক মজুদ এবং তার সশস্ত্র বাহিনী সব নিঃশেষ করে দিয়েছে।”

এ মুখপাত্র বলেন, “হোয়াইট হাউস ইউক্রেনের হতাহতের তথ্য দিচ্ছে না কারণ তারা এখানে আগ্রাসনের শিকার। রাশিয়া এখানে আগ্রাসন চালাচ্ছে।”

ইউক্রেনের স্থল বাহিনীর প্রধান ওলেক্সান্ডার সিরস্কি বলেছেন, রাশিয়া বাখমুতকে দখল করার জন্য ‘সর্বোচ্চ চেষ্টা’ চালিয়ে যাচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত তারা ব্যর্থ হয়েছে।”

এদিকে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, জন কিরবি সাংবাদিকদের জানিয়েছে, ইউক্রেনের ডনবাস অঞ্চলের বাখমুতে হামলার লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ মস্কো। বাস্তব অর্থে কৌশলগত এবং উল্লেখযোগ্য অঞ্চল দখলে নিতে পারেনি রাশিয়া। আমরা ধারণা করছি, এক লাখের বেশি হতাহত হয়েছে রাশিয়ার। যার মধ্যে সরাসরি হামলায় অংশ নেওয়া ২০ হাজার সেনা নিহত হন।

তবে ইউক্রেনে রাশিয়ার হতাহতের সংখ্যা নিয়ে জন কিরবির এমন তথ্য তাৎক্ষণিক স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারেনি সংবাদমাধ্যম বিবিসি। নিহতের বিষয়ে মস্কোরও কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

সম্প্রতি অস্ত্র-সংকটের কথা জানিয়ে বাখমুতে নিজেদের যোদ্ধা সরিয়ে নেওয়ার হুমকি দিয়েছে ওয়াগনার প্রধান ইয়েভজেনি প্রিগোজিন। সেনা হতাহতের হার ক্রমাগত বাড়তে থাকাকে কারণ উল্লেখ করে রুশ সামরিক ব্লগার সিমন পেগভের নেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন তিনি। যত দ্রুত সম্ভব অস্ত্র পাঠাতে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগুর কাছে আহ্বান জানান তিনি। ওয়াগনার গ্রুপ সেনা প্রত্যাহার করলে বাখমুতের রুশ সেনাদের ফ্রন্টলাইন ভেঙে পড়বে, এমন কথাও বলেছেন প্রিগোজিন।

Link copied!