• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১২ জুলাই, ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১, ৬ মুহররম ১৪৪৫

সিঙ্গাপুরে মালয়েশিয়ান মাদক কারবারির মৃত্যুদণ্ডে ক্ষোভ


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ২৮, ২০২২, ০২:৩৮ পিএম
সিঙ্গাপুরে মালয়েশিয়ান মাদক কারবারির মৃত্যুদণ্ডে ক্ষোভ
ছবি : রয়টার্স

মালয়েশিয়ার বুদ্ধিভিত্তিক অক্ষম এক মাদক কারবারিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন সিঙ্গাপুরের আদালত। এই রায় ঘোষণার পরপরই আন্তর্জাতিক সমালোচনার মুখে পড়ে দেশটি। কিন্তু সকল সমালোচনা উপেক্ষা করে আদালতের সিদ্ধান্তে অটল সিঙ্গাপুর সরকার।

মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) নাগায়ন্তন ধার্মালিঙ্গম নামে ৩৪ বয়সী এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে মাদক পাচারের অভিযোগে মৃত্যুদণ্ড দেন সিঙ্গাপুরের আদালত।

রয়টার্স বলছে, সিঙ্গাপুরে ৪২ গ্রাম হিরোইন বহনের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন নাগায়ন্তন। দেশটিতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন বেশ কঠোর। বুদ্ধিভিত্তিক প্রতিবন্ধকতার কারণে আদালতের কাছে কিছুটা সহানুভতি প্রার্থনা করেন নাগায়ন্তনের আইনজীবী। কিন্তু তার আইনজীবীর আবেদন উপেক্ষা করে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেওয়া হয়েছে।

নাগায়ন্তনের আইনজীবী ও অধিকারকর্মীরা জানান, নাগায়ন্তনের বুদ্ধিভিত্তিক হার স্বাভাবিকের তুলনায় ৬৯ শতাংশ। যা বুদ্ধিবৃত্তিক অক্ষমতা হিসেবে স্বীকৃত স্তর।
কিন্তু সিঙ্গাপুরের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো বলছে, তিনি যা করেছেন উদ্দেশ্যমূলক ও ইচ্ছাকৃতভাবে করেছেন।

সিঙ্গাপুরের অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, নাগায়ন্তনের বিচার নিরপেক্ষভাবে হয়েছে। নিজ অধিকারের বিষয়ে জানোর জন্য তিনি আবেদন করার সুযোগ পেয়েছেন। প্রায় ১১ বছর ধরে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের বিচার আইনের অধীনে হয়েছে।

মামলার রায় দেওয়ার পর তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা। মানবাধিকারকর্মীরা নাগায়ন্তনের সাজা কমিয়ে আনার দাবি করছেন। জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা ও ব্রিটিশ বিলিয়নিয়ার রিচার্ড ব্রেনসন একই দাবি জানিয়েছেন।

এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল দাবি অভিযোগ করেছে, নাগায়ন্তনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া অমানবিক। অতি দ্রুত এই রায় পরিবর্তন করতে দাবি জানিয়েছে তারা।

সিঙ্গাপুর সরকার বলছে, মাদক পাচার রোধে মৃত্যুদণ্ড একমাত্র প্রতিরোধক। আর এই সাজা দেশের প্রায় সব জনগণ মেনে নিয়েছেন।

Link copied!