• ঢাকা
  • সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১, ৮ মুহররম ১৪৪৫

‘তুফানে’ রেকর্ড, পাঁচদিনে আয় কত?


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২৪, ০৬:৪৩ পিএম
‘তুফানে’ রেকর্ড, পাঁচদিনে আয় কত?
‘তুফানে’ অভিনয় করেছেন শাকিব খান। ছবি: পোস্টার থেকে।

দুই দশকের ইতিহাসে বাংলা চলচ্চিত্রে সর্বোচ্চ শো’র রেকর্ড গড়ল ঈদে মুক্তি পাওয়া আলোচিত সিনেমা ‘তুফান’। ঈদ উপলক্ষ্যে দেশের ১২৯টি হলে মুক্তি দেওয়া হয় ছবিটি। গেল পাঁচদিন ধরে হলে হলে হাউজফুল চলছে ‘তুফান’। এমন রেকর্ডে ভক্ত, দর্শক আর সিনেমাপ্রেমীদের প্রশ্ন, ছবিতে বিনিয়োগ করা অর্থের কত উঠে এলো এই কয়দিনে?

রায়হান রাফি পরিচালিত ও শকিব খান অভিনীত ‘তুফান’ ছবির টিজার আর ট্রেলার প্রকাশের পর থেকেই তুমুল আলোচনা শুরু হয়েছে। এর ওপর এবারই প্রথম ঢালিউড সিনেমায় শাকিব টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর সঙ্গে জুটি গড়েছেন।

শুধু এখানেই থেমে থাকেনি, তুফানে চঞ্চল চৌধুরীর অভিনয় নিয়েও দর্শকদের ব্যাপক আগ্রহ। তবে সব ছাপিয়ে শাকিবের চমকে দেওয়া নতুন লুক আর মুক্তির আগেই উরাধুরা গানের ঢেউ তুফানকে আলোচনার তুঙ্গে নিয়ে গেছে।

একইসঙ্গে পুরোপুরি অ্যাকশন ও কমার্শিয়াল ধাঁচের তুফানে ভরপুর বিনোদনের কারণে হলে মুক্তি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন দর্শকরা। যারা এতদিন হলের কথা শুনে নাক সিটকাতেন, তারও ছুটে গেছেন তুফানের মোহে।

ঈদের দিন থেকেই টানটান উত্তেজনা চলছে দর্শকদের মধ্যে। হল মালিকরাও দর্শকদের উন্মাদনায় বুঁদ হয়ে শো বাড়িয়ে দিয়েছেন। সিনেমা বোদ্ধারা বলছেন, তুফান বড় ধরনের ব্যবসা করবে। ব্যবসায় বাংলা ছবির রেকর্ডও গড়তে পারে।

ছবির ব্যবসা নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন স্টার সিনেপ্লেক্সের জ্যেষ্ঠ বিপণন কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেছেন, ঈদের আগে অগ্রিম টিকিট ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তুফানের বেগে সব টিকিট ‘সোল্ড আউট’। ঈদের দিন স্টার সিনেপ্লেক্সের সব আউটলেট মিলিয়ে ২২টি শো চালানো হয়েছিল।

মেজবাহ উদ্দিন আরও বলেন, এত শো চালানোর পরেও সিনেমাটি দেখার জন্য যে এত দর্শকের চাপ তৈরি হয়েছে তা অতীতে দেখা যায়নি। যে কারণে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) থেকে শো বাড়িয়ে ৫১টি করা হয়েছে। শুক্রবার (২১ জুন) ছুটির দিন তো দর্শকের চাপ বেড়েছে বহুগুণ।

না, শুধু স্টার সিনেপ্লেক্সেই নয়, আলোচিত তুফান ছবির দর্শক চাপ ময়মনসিংয়ের ছায়াবাণী, সিরাজগঞ্জের মিনি সিনেপ্লেক্স ‘রুটস সিনে ক্লাব’, সৈয়দপুরের তামান্না ডিজিটাল সিনেমা হলসহ গোটা দেশের প্রতিটি সিনেমা হলেই দেখা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, দর্শকের চাপ সামলাতে ময়মনসিংহ, সিরাজগঞ্জ, নীলফামারীর হলগুলোতে রাত ১১টা ও ১২টার শো চালু করেছেন হল মালিকরা। ছায়াবাণীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলছেন, দর্শকের চাপে ‘লেট নাইট শো’ চালাতে হচ্ছে।

এদিকে, ঝড় বৃষ্টি উপেক্ষা করে সৈয়দপুরের তামান্না ডিজিটালে ছুটে যাচ্ছেন দর্শকরা। শুধু কি তাই, বন্যার ভয়াবহতা উপেক্ষা করে গ্র্যান্ড সিলেট সিনেপ্লেক্সে রাত ১১টার শোতেও ঢল নামছে দর্শকদের।

তবে রেকর্ডভাঙা হাউজফুল শো থেকে তুফনার আয় কতটা উঠে এলো তা নিয়ে এখনও কোনো আনুষ্ঠানিক তথ্য দেয়নি ‘তুফান’ কর্তৃপক্ষ। অবশ্য, সিনেমাটির প্রযোজক শাহরিয়ার শাকিল বললেন, মুক্তি পাওয়া সিনেমার আয় কত হচ্ছে, দর্শক চাহিদা কেমন, তা সরাসারি জানার কোনো সুযোগ নেই আমাদের। অন্যান্য দেশে বক্স অফিস থাকায় এ বিষয়ে সঠিক ও নির্ভুল তথ্য পাওয়া যায়। তবে আমাদের ক্ষেত্রে তা সম্ভব হচ্ছে না।

অবশ্য, তুফান সিনেমার প্রযোজক বলেছেন, সিনেমা থেকে যা আয় হচ্ছে তা ম্যানুয়ালি সংগ্রহ করতে হচ্ছে। শুধু একটা হিসাবই হাতে আছে তা হলো, সিনেপ্লেক্সে প্রথম আড়াই দিনে ১ কোটি ২০ লাখ টাকা ক্রস সেল হয়েছে। সিনেপ্লেক্সের ইতিহাসে গত দুই দশকে কোনো সিনেমার ক্ষেত্রেই যা হয়নি।

প্রসঙ্গত, তুফান সিনেমা দেখার পর বহু দর্শক এখন পর্যন্ত রিভিউ দিয়ে যাচ্ছেন। যা অনেক ক্ষেত্রে মিশ্র প্রতিক্রিয়াও তৈরি করছে। তবে এটাও ঠিক টিকিট না পেয়ে মধুমিতায় ভাঙচুরও হয়েছে। সিনেমা বোদ্ধাদের ভাষ্য, সপ্তাহ পেরোলেই ‘তুফান’ সিনেমার আয়ের রেকর্ড জানা যাবে।  

Link copied!