• ঢাকা
  • রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৫ শা’বান ১৪৪৫

মুক্তি পেতে যাচ্ছে আলোচিত সিনেমা ‘এমআর-৯’


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ২১, ২০২৩, ০৪:১৮ পিএম
মুক্তি পেতে যাচ্ছে আলোচিত সিনেমা ‘এমআর-৯’

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বাজেটের ছবি ‘এমআর-৯: ডু অর ডাই’। যা জনপ্রিয় গোয়েন্দা মাসুদ রানা ‘ধ্বংসপাহাড়’ অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে।

শুক্রবার (২৫ আগস্ট) পৃক্ষাগৃহে সিনেমাটি মুক্তি পাবে। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন নির্মাতা আসিফ আকবর। মুক্তির মোটে চার দিন বাকি। ফলে প্রচারে বিস্তর সময় দিচ্ছেন ‘এমআর-৯’ সিনেমার সদস্যরা।

হলিউড ধাঁচে বানানো ‘এমআর-৯’ নিয়ে উচ্ছ্বসিত নির্মাতাসহ কলাকুশলীরা। সিনেমাটি দেখতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় দর্শকরাও। সিনেমাটি মুক্তি উপলক্ষে রবিবার রাজধানীতে একটি হোটেলে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে টিম এমআর-৯।

এসময় পরিচালক আসিফ আকবর বলেন, “বাংলাদেশের সব দর্শকের মাঝে মাসুদ রানা সিরিজ একটা আবেগের জায়গা। সেখান থেকে এটা নিয়ে সিনেমা বানাতে চেয়েছিলাম। বলা চলে- অনেকটা দায়িত্ববোধের জায়গা থেকেই প্রায় ৬ বছর ধরে ‘এমআর-৯: ডু অর ডাই’ বানিয়েছি। স্ক্রিপ্টের পেছনে আমরা তিন বছরের বেশি সময় দিয়েছি। ২৬টি ড্রাপ্টের পরে আমরা শুটিং স্ক্রিপ্ট ফাইনাল করেছি। এটার জন্য অনেক রিসার্চ করেছি। শুধু বইয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকিনি। আমরা বিশ্বের সব দেশের দর্শকদের নিয়ে রিসার্চ করেছি। সুতরাং সিনেমাটি নির্মাণে আমরা চেষ্টার কোনো ঘাটতি রাখিনি।”

তিনি আরও বলেন, “আজ থেকে ৬০ বছর আগে বাংলাদেশের পাঠক মাসুদ রানা বইগুলো গ্রহণ করেছিল। শুধু তাই নয়, এই বইয়ের মাধ্যমে উঠে এসেছিল পুরো দুনিয়ার বেশকিছু ঘটনা। আমি মনে করি এই সিনেমাটি পুরো বিশ্বের দর্শকের কাছে যেতে পারবে। মাসুদ রানাসহ আরও যে চরিত্রগুলো ছিল সেগুলোও আমরা দারুণভাবে তুলে ধরতে পেরেছি। এই সিনেমায় ধংস পাহাড়সহ বিদেশের কিছু চরিত্র আমরা যোগ করেছি। এখানে যুক্তরাষ্ট্রের সিআইএ, চীনের এমএসএস এজেন্সি, ভারতের র এজেন্ট এই সিনেমায় বিদ্যমান। এগুলোর সঙ্গে তো বাংলাদেশের মূল জায়গাটি আছেই।”

‘এমআর-৯: ডু অর ডাই’ ছবিতে এবিএম সুমনের সঙ্গে অভিনয় করেছেন ভারতের অভিনেত্রী সাক্ষী প্রধান। এছাড়া ঢাকা থেকে আরও আছেন শহীদুল আলম সাচ্চু, আনিসুর রহমান মিলন, জেসিয়া ইসলাম ও টাইগার রবি। এছাড়া মার্কিন অভিনয়শিল্পী হিসেবে কাজ করেছেন মাইকেল জেই হোয়াইট, নিকো ফাস্টার, ম্যাট পাসমোর, ওলেগ প্রাডিউস, কেলি গ্রেসন প্রমুখ।

এই সিনেমার সফলতা পেলে হলিউড অভিনেতাদের সঙ্গে বাংলাদেশের অভিনেতাদের নিয়ে আরও কাজ করতে চান এই নির্মাতা। তার কথায়, ‘হলিউডে প্রথমবারের মত বাংলাদেশি কোন গোয়েন্দা হিরো পরিচয় করাতে পারছি। এটা দুই দেশের জন্য ঐতিহাসিক বিষয় হতে যাচ্ছে। আমাদের পরিকল্পনা আছে- দর্শকরা যদি এটা গ্রহণ করেন হলিউডের সঙ্গে আমরা কাজ চলমান রাখব।’

সিনেমার চিত্রনাট্য করেছেন পরিচালক আসিফ আকবর, আব্দুল আজিজ ও নাজিম উদ দৌলা। প্রযোজনায় জাজ মাল্টিমিডিয়া ও আল ব্রাভো ফিল্মস (যুক্তরাষ্ট্র)।

Link copied!