• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১, ১১ শাওয়াল ১৪৪৫

‘রক্ত দেখে টাকা না নিয়েই পালিয়ে যান খুনি’


রাজবাড়ী প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪, ০৭:১৩ পিএম
‘রক্ত দেখে টাকা না নিয়েই পালিয়ে যান খুনি’

রাজবাড়ীর কালুখালীতে বিকাশ এজেন্ট ব্যবসায়ী শরিফ খানকে (৪২) হত্যার ঘটনায় তরিকুল ইসলাম (২০) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের সে পুলিশকে জানিয়েছে, দোকান থেকে টাকা হাতিয়ে নিতেই শরিফকে হত্যা করা হয়।

শুক্রবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে কালুখালী থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সহকারী পুলিশ সুপার (পাংশা সার্কেল) সুমন কুমার সাহা।

নিহত শরিফ খান উপজেলার রতনদিয়া ইউনিয়নের ধানবাড়ীয়া গ্রামের মৃত হাকিম খানের ছেলে। গ্রেপ্তার তরিকুল ইসলাম একই ইউনিয়নের রূপসা গ্রামের বাসিন্দা।

সংবাদ সম্মেলনে সহকারী পুলিশ সুপার বলেন, গত ২১ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার রুপসা স্লুইস গেট বাজারে আবু বক্করের সেলুনের দোকানের সামনে থেকে বিকাশ এজেন্ট ব্যবসায়ী শরিফের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পরদিন ২২ ফেব্রুয়ারি নিহত শরিফের স্ত্রী আছমা খাতুন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে কালুখালী থানায় মামলা করেন।

পরে তদন্ত শুরু করে পুলিশ। তদন্তে বেড়িয়ে আসে তরিকুলের নাম। সে অনলাইন জুয়ায় আসক্ত। জুয়াড় টাকা জোগাড় করতে তিনি ব্যবসায়ী শরিফকে হত্যার পরিকল্পনা করেন।

সুমন কুমার সাহা আরও বলেন, গত ২১ ফেব্রুয়ারি রাতে শরিফ তার ছেলে আরাফাত খানকে নিয়ে রুপসা গায়েবী মসজিদ মাঠে ওয়াজ মাহফিলে ছিলেন। রাত ১১টার দিকে তরিকুল ইসলাম ফোন করে শরিফকে জানায় তিনি বিকাশে টাকা পাঠাবেন। এই বলে মাহফিল থেকে শরিফকে ডেকে আনেন। পরে তার পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী রূপসা স্লুইস গেট বাজারে জাদুর সেলুনের সামনে ধারাল দা দিয়ে মাথায় একাধিক কোপ দিয়ে শরিফকে হত্যা করেন।

পরে শরিফকে হত্যার পর রক্ত দেখে ভয় পেয়ে টাকা না নিয়েই ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় তরিকুল। হত্যার কাজে ব্যবহৃত ধারাল দা উদ্ধার করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে কালুখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর হোসাইনসহ অন্য পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Link copied!