• ঢাকা
  • রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১,

২৯ বছর পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার


ফরিদপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২৩, ০৩:১৪ পিএম
২৯ বছর পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার

গোপালগঞ্জ জেলা সদর এলাকায় চা-দোকানদার সেকেন্দার শেখ হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মো. মিজান ওরফে শাহিনকে (৪৬) ২৯ বছর পর গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১০।

শুক্রবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-১০ ফরিদপুর ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক লে. কমান্ডার কে এম শাইখ আকতার গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) রাতে ফরিদপুরের ভাঙ্গা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। মিজান গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার কাঠি গ্রামের মৃত ওয়াদুদ দফাদারের ছেলে।

র‌্যাব জানায়, গোপালগঞ্জের সদর উপজেলার তেলিগতি এলাকার বাসিন্দা মৃত নজির শেখের ছেলে সেকেন্দার শেখ (৩০) কাঠিবাজারে চায়ের দোকান দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন। ১৯৯৪ সালের ১৪ জানুয়ারি রাতে সেকান্দার দোকান থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। কাঠি পশ্চিম পাড়া এলাকায় পৌঁছালে রাস্তার পাশে সাত-আটজন ব্যক্তিকে মাদক সেবন করতে দেখে তাদের নিষেধ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মিজান ওরফে শাহিনসহ তার অন্য সহযোগীরা মিলে সেকান্দারকে ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

পরে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠায়। এ ঘটনায় সেকেন্দার শেখের ভাই এনায়েত শেখ বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ সদর থানায় মামলা করেন।

র‌্যাব কর্মকর্তা কে এম শাইখ আকতার জানান, মামলার পর হত্যাকাণ্ডে জড়িতরা সবাই আত্মগোপনে চলে যায়। তাদের মধ্যে মিজান ওরফে শাহিন কৌশলে মালয়েশিয়া চলে যান। দীর্ঘদিন সেখানে অবস্থান করার পর দেশে ফিরে ফরিদপুরের ভাঙ্গাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় নাম ও পরিচয় গোপন করে জীবন যাপন করতে থাকে।

তিনি আরও জানান, ঘটনাটি জানতে পেরে অভিযানে নামে র‌্যাব। এরপর বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি মিজান ওরফে শাহিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। মিজানকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

Link copied!