• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১, ৮ শাওয়াল ১৪৪৫

হত্যা মামলায় বাবা-ছেলেসহ ৪ জনের যাবজ্জীবন


সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২৩, ০৭:২৫ পিএম
হত্যা মামলায় বাবা-ছেলেসহ ৪ জনের যাবজ্জীবন

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে আবু সাঈদ হত্যা মামলায় বাবা-ছেলেসহ চার আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক মো. আবুল বাশার মিঞা এই রায় দেন।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর জেবু ন্নেছা (জেবা রহমান) রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মামলায় চার আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। অপর দিকে অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় ৮ জনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন শাহজাদপুর উপজেলার টেকুয়াপাড়া গ্রামের তাজের ফকিরের ছেলে আব্দুস সালাম ও তার ভাই আবুল কালাম। আব্দুস সালামের ছেলে আজিজুল ইসলাম ও আবুল কালামের ছেলে বোরহান উদ্দিন।

বেকসুর খালাস পাওয়া ব্যক্তিরা হলেন শাহজাদপুর উপজেলার টেকুয়াপাড়া গ্রামের মহসীন রেজা, আব্দুস কুদ্দুস, তয়জাল, আলেয়া বেগম, ময়না খাতুন, রেখা খাতুন, বুলবুলি খাতুন ও ইদ্রিস আলী।

মামলা সূত্রে জানা যায়, শাহজাদপুর উপজেলার টেকুয়াপাড়া গ্রামের আব্দুস সালামের সঙ্গে প্রতিবেশী জাহাঙ্গীর আলমের বাড়ির সীমানা প্রাচীর নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জেরে ২০০৫ সালের ২২ এপ্রিল বিকেলে আসামিরা লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে জমায়েত হয়। এ সময় আসামিরা জোরপূর্বক বাড়ির সীমানার প্রাচীর সরাতে গেলে জাহাঙ্গীর আলমের লোকজন বাধা দেন। এতে আসামিরা তাদের পিটিয়ে আহত করেন। পরে তারা জাহাঙ্গীরের বাবা আবু সাঈদের ওপর হামলা করে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জের একটি বেসরকারি হাসপাতালে (মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল হাসপাতাল) ভর্তি করেন। সেখানে আবু সাঈদের অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে দ্রুত সিরাজগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে সাতজনের নাম উল্লেখ করে শাহজাদপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটির তদন্ত শেষে ১২ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। মামলার দীর্ঘ সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আদালত আজ এ রায় প্রদান করেন।

Link copied!