• ঢাকা
  • শনিবার, ১৮ মে, ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

গারো কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা, ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার


শেরপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: এপ্রিল ২৫, ২০২৩, ০১:১২ পিএম
গারো কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা, ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় গারো কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে শাহরিয়ার খান শাওন নামের এক ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সাইদুর রহমান।

গ্রেপ্তার শাহরিয়ার খান শাওন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।

ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী জানান, শনিবার ঈদের দিন রাতে শাওন তাদের বাড়িতে যান এবং তার বাবা-মায়ের সঙ্গে ঘরে বসে পান খেতে চান। এ সময় বাড়ির বাইরে উঠানে ছিলেন তিনি। কিছুক্ষণ পর শাওন ঘর থেকে বের হয়ে তাকে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরেন এবং মুখ চেপে ধরে পাহাড়ের ভেতর নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে তার চিৎকারে বাবা-মা ঘর থেকে বের হয়ে এলে শাওন চলে যান।

ওই কলেজছাত্রী আরও বেলেন, পরে এ ঘটনা নিয়ে উপজেলা ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ এবং পারিবারিক সিদ্ধান্তে সোমবার থানায় অভিযোগ করেন।

এদিকে ঘটনার পর একটি প্রভাবশালী মহল ওই শিক্ষার্থীকে নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীর পরিবার। ফলে এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তারা। বর্তমানে পরিবারটি ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের উপজেলা শাখার সভাপতি আদিবাসী নেত্রী রবেতা ম্রংয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে।

রবেতা ম্রং বলেন, “মেয়েটি সাহসী বলে আজ বেঁচে গেছে এবং প্রতিবাদ করেছে।”

ঝিনাইগাতী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল্লাহেল ওয়ারেজ নাইম বলেন, “এ ধরনের কর্মকাণ্ড দলের জন্য এবং সমাজের জন্য কলঙ্কের। আমরা কোনো অনিয়মকে প্রশ্রয় দিই না। ধর্ষণের চেষ্টার মতো অভিযোগ ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। এত বড় অপরাধের অবশ্যই তদন্তপূর্বক বিচার হওয়া দরকার।”

অভিযুক্ত শাওনের বাবা শাজাহান খান বলেন, “ঘটনাটি সত্য নয়। আমার ছেলেকে ফাঁসানো হয়েছে।”

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সাইদুর রহমান বলেন, “গ্রেপ্তারের পর ঝিনাইগাতী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাওন বর্তমানে পুলিশের হেফাজতে আছে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা চলছে।”

Link copied!