• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪৫

বাস-পিকআপ সংঘর্ষে নিহত ১৩ জনের পরিচয় মিলেছে


ফরিদপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৬, ২০২৪, ০৩:১৬ পিএম
বাস-পিকআপ সংঘর্ষে নিহত ১৩ জনের পরিচয় মিলেছে

ফরিদপুরে যাত্রীবাহী বাস ও পিকআপের সংঘর্ষে ১৩ জন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) সকাল ৮টার দিকে কানাইপুরের দিকনগর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের রয়েছেন পাঁচজন। তারা হলেন ফরিদপুরের বোয়ালমারীর বেজিডাঙ্গা গ্রামের রফিক মোল্লা (৩৫), তার স্ত্রী সুমি বেগম (২৩), দুই ছেলে রুহান মোল্লা (৬) ও হাবিব মোল্লা (৩) এবং রফিক মোল্লার মা।

অন্য নিহতরা হলেন বোয়ালমারী উপজেলার সত্তরকান্দা এলাকার মৃত. আ. ওহাব মোল্যার স্ত্রী মোসা. মর্জিনা বেগম (৭০), আলফাডাঙ্গা উপজেলার চর সহস্রাইল এলাকার মৃত রশিদ খানের ছেলে তবিবুর খান (৫৫), একই উপজেলার কুসুমদী এলাকার সিরাজুল ইসলামের ছেলে নজরুল ইসলাম (৩৫), বেজীডাঙ্গা গ্রামের নান্নু মোল্লার স্ত্রী জাহানারা বেগম (৪০), মিল্টন শেখের মেয়ে নুরানী (২), হিতাডাঙ্গা এলাকার আলেক সরদারের স্ত্রী শুকুরন নেছা (৭০), সৈয়দ নিয়াদ আলীর মেয়ে কহিনুর বেগম (৬০) এবং ইব্রাহিমের স্ত্রী সূর্য বেগম (৪০)।

পুলিশ জানায়, যাত্রীবাহী বাসটি ঢাকা থেকে মাগুরার দিকে যাচ্ছিল। কানাইপুরের দিকনগর এলাকায় পৌঁছলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই ১১ জন মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস মরদেহ উদ্ধার করে। এ ছাড়া আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন আরও দুজন নিহত হয়।

ফরিদপুরের করিমপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সালাউদ্দিন চৌধুরী বলেন, “যাত্রীবাহী বাসটি ঢাকা থেকে মাগুরার উদ্দেশে যাচ্ছিল। এ সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই ১১ জনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আহত ৭ জনকে উদ্ধার করে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজন ও চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ১ জন মারা যান। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা পক্রিয়াধীন।”

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. কামরুল আহসান তালুকদার বলেন, এ ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। একই সঙ্গে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে পাঁচ লাখ টাকা এবং আহত প্রত্যেককে তিন লাখ টাকা করে সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া হবে।

Link copied!