• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪৫

ষাটোর্ধ্ব শিপ্রা বেগমের নামে ৫১ মাদক মামলা


চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: নভেম্বর ১৮, ২০২১, ০৯:০৪ এএম
ষাটোর্ধ্ব শিপ্রা বেগমের নামে ৫১ মাদক মামলা

ষাট বছর বয়সে ৫১টি মামলার আসামি তিনি। সপ্তাহে পাঁচ দিনই হাজিরা দিতে হয় আদালতে। বয়সের ভারে ন্যুব্জ শিপ্রা বেগম মামলার ভারেও ন্যুব্জ। জেলার শীর্ষ এ মাদক কারবারি অবশেষে গ্রেপ্তার হয়েছেন পুলিশের হাতে। বুধবার (১৭ নভেম্বর) বিকেলে শহরের বুদ্ধিমান পাড়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

গ্রেপ্তার শিপ্রা বেগম চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার বুজরুক গড়গড়ি এলাকার মৃত বাবুল রহমানের স্ত্রী।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন জানান, প্রথমে সীমান্ত এলাকায় বিভিন্ন পণ্য চোরাচালান করতেন শিপ্রা বেগম। ৩০ বছর বয়স থেকে মাদক কারবারের সঙ্গে জড়িত তিনি। ১৯৯১ সালে প্রথমে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। এরপর ৫১টি মামলার আসামি হয়ে আলোচিত এ নারীর গায়ে লেগেছে জেলার শীর্ষ মাদক কারবারির তকমা। 

ওসি মহসীন আরও জানান, চারটি মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি শিপ্রা বেগম। গ্রেপ্তার হয়েছেন প্রায় শতাধিকবার। তবুও থেমে ছিল না তার মাদক কারবার। এ জন্য বিশেষভাবে বাড়িও তৈরি করেছিল। উঁচু পাঁচিলে ঘেরা, পাঁচিলের মাথায় কাচ দেওয়া। সহজে পুলিশ সে বাড়িতে ঢুকতে পারত না। পুলিশ গেলেই দরজা বন্ধ করে বাড়ির পেছনে কৌশলে তৈরি করা গোপন দরজা পালিয়ে যেতেন তিনি। 

শিপ্রা বেগম জানান, ৩০ বছর বয়সে তার স্বামী মারা গেলে প্রথমে চাল ও সবজি বিক্রি করতেন। এরপর দ্বিতীয় বিয়ে করলে সে স্বামী মাদকাসক্ত ছিলেন। তার মাধ্যমেই মাদক  কারবারিতে নামেন। 

চুয়াডাঙ্গার বুজরুক গড়গড়ি এলাকার বাসিন্দা শিপ্রার পুরো পরিবারই মাদক কারবারে জড়িত। তার স্বামী বাবুল ২০১৫ সালে একাধিক মাদক মামলার হুলিয়া নিয়ে মারা যান। ছেলে আলী হোসেন ৫ মামলার আসামি। একটি মামলায় ৩২ বছরের সাজা খাটছেন তিনি।

Link copied!