• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১, ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

ইট চুরির অপবাদে গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন


সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ১১, ২০২১, ০৫:২৮ পিএম
ইট চুরির অপবাদে গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নে ইট চুরির অপবাদ দিয়ে এক গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন ও চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। 

মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) রাতে কলারোয়া থানায় ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। এর আগে সোমবার (৯ আগস্ট) সকাল ৯টার দিকে ইট চুরির অভিযোগে তার মাথার চুল কেটে দেয় প্রতিবেশীরা।  

নির্যাতিত ওই গৃহবধূর নাম রাশিদা বেগম (৪৫)। তিনি দেয়াড়া ইউনিয়নের পাকুড়িয়া গ্রামের ইব্রাহিম গাজীর স্ত্রী।

জানা গেছে, রোববার (৮ আগস্ট) রাত ১০টার দিকে পাকুড়িয়া গ্রামের ভ্যানচালক নেদু প্রতিবেশী রাশিদা বেগমের বিরুদ্ধে দুটি ইট চুরির অভিযোগ আনেন। পরদিন রাশিদা বেগমকে বাড়ি থেকে ধরে এনে নেদু, তার স্ত্রী, পুত্রবধূসহ পরিবারের সদস্যরা গাছের সঙ্গে বেঁধে বিবস্ত্র করে মারধর করে ও চুল কেটে ছেড়ে দেয়।

খোরদো ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাশিদা বেগমের প্রতিবেশী আব্দুল মান্নান জানান, নেদু ও তার পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করছে রাশিদা বেগম ইট চুরি করেছেন। এরপর রাশিদাকে ধরে নিয়ে বাড়ির নারীরা মধ্যযুগীয় কায়দায় বেঁধে চুল কেটে দিয়েছে। চরম অন্যায় করেছে তারা। 

কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর খায়রুল কবির জানান, এ ঘটনায় মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) রাতে রাশিদা বেগম বাদী হয়ে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পর মামলা হয়েছে। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।

Link copied!