• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১, ৮ শাওয়াল ১৪৪৫

রাহুল-কোহলির জোড়া শতক, পাকিস্তানের সামনে রানের পাহাড়


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১১, ২০২৩, ০৭:১০ পিএম
রাহুল-কোহলির জোড়া শতক, পাকিস্তানের সামনে রানের পাহাড়
বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুল । ছবি : সংগৃহীত

আগের দিন যেখানে শেষ করেছিলেন, রিজার্ভ ডে-তে সেখান থেকেই শুরু করছে ভারতীয় দুই ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুল। বৃষ্টিভেজা উইকেটে যেখানে পেসাররা পাবে বাড়তি সুবিধা সেখানে এই দুই ব্যাটসম্যান পাক বোলারদের বিপক্ষে ছুটিয়েছেন ৪-৬ এর ফুলঝুড়ি। এই দুইজনের জোড়া শতকে পাকিস্তানকে ৩৫৭ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে ভারত। নির্ধারিত ওভার শেষে ভারত ২ উইকেটে করেন ৩৫৬ রান। বিরাট কোহলি ১২২ রানে অপরাজিত ছিলেন। লোকেশ রাহুল অপরাজিত ছিলেন ১১১ রানে।

টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নামে ভারত। ম্যাচে শুরু থেকে পাকিস্তানের পেসার শাহিন শাহর ওপর চড়াও হয়ে খেলতে থাকেন ভারতীয় ওপেনার শুভমান গিল। তবে অন্যপ্রান্তে ধীরে সুস্থে খেলেন রোহিত শর্মা। ভারতীয় অধিনায়ক দুই পেসারকে সামলাতে বেশ হিমশিম খেয়েছেন। শুভমান ৩৭ বলেই তুলে ফেলেন অর্ধ শতক। 

অন্যদিকে সেট হয়ে হাত খুলে ব্যাট করতে থাকেন রোহিতও। ১৩তম ওভারে পাকিস্তানি স্পিনার শাদাব খানের বলে দুই ছক্কা ও এক চার হাঁকিয়ে নিজের খলোশ ছেড়ে বের হয়ে আসার ইঙ্গিত দেন তিনি। শাদাবের পরের ওভারে ফের স্ট্রোকের ফুলঝুরি ছুটিয়েছেন রোহিত। ওভারের প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে তুলে নেন ক্যারিয়ারের ৫০তম ওয়ানডে ফিফটি। 

কিন্তু এরপরই পথ হারান এই দুই ব্যাটসম্যান। যার শুরুটা রোহিতের বিদায়ে। শাদাবকে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ফাহিম আশরাফের হাতে ধরা পড়েন এই ওপেনার। ৪৯ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৫৬ রান করেন তিনি। এরপর শাহিনের অফ কাটারের ফাঁদে পড়ে আগা সালমানের হাতে ক্যাচ দেন গিল। ৫২ বলে ১০ চারে ৫৮ রান  করেন ডানহাতি এই ওপেনার।

দুই ওপেনারের বিদায়ের পর হাল ধরেন ইনজুরি কাটিয়ে ফেরা লোকেশ রাহুল ও অভিজ্ঞ বিরাট কোহলি। কিন্তু ২৪তম ওভার চলার সময় ঝুম বৃষ্টি নামে কলম্বোর আকাশ ভেঙে।  পুরো মাঠ ঢেকে দেওয়া হয় কভার দিয়ে। ভারতের সংগ্রহ তখন ২ উইকেটে ১৪৭ রান।  বৃষ্টি বার বার আসা যাওয়ায় শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ সময় রাত ৯টার দিকে খেলা বন্ধ ঘোষণা করেন আম্পায়াররা। 

এবারের এশিয়া কাপে সুপার ফোরে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ ও ফাইনালের জন্য রিজার্ভ ডে রাখা হয়েছে। ফলে আজ ২৪.১ ওভার থেকেই খেলা শুরু হয়েছে। যদিও বৃষ্টির কারণে নির্ধারিত সময়ের দেড় ঘণ্টা পর মাঠে গড়ায় খেলা। এরপর থেকে কেবলই কোহলি-রাহুলের দাপট।

দুজনে গড়ে তোলেন ২৩৩ রানের জুটি। করেন শতকও। ৪৭তম সেঞ্চুরির দিনে ওয়ানডেতে ১৩ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়েছেন কোহলি। কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের চেয়ে ৫৪ ইনিংস কম খেলে রেকর্ডটি নিজের করে নিয়েছেন ডানহাতি এই ব্যাটার। আর ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া রাহুল অপরাজিত থাকেন ১০৬ বলে ১২ চার ও ২ ছক্কায় ১১১ রানে।

সাইড স্ট্রেইনের কারণে রিজার্ভ  ডে-তে বলে আর মাঠে নামা হয়নি হারিস রউফের। দলটির হয়ে একটি করে উইকেট নেন শাদাব খান ও শাহিন।

Link copied!