• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

এক নজরে দেখে নেই অধিনায়কদের ক্যারিয়ার


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: অক্টোবর ৪, ২০২৩, ০৬:৫৮ পিএম
এক নজরে দেখে নেই অধিনায়কদের ক্যারিয়ার
সব অধিনায়কের ছবি। ছবি : সংগৃহীত

অপেক্ষার হচ্ছে অবসান। বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) থেকে মাঠে গড়াবে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। উদ্বোধনী দিনে মাঠে নামবে ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড। বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবে শনিবার (৭ অক্টোবর)। আফগানদের বিপক্ষে এদিন মাঠে নামবে টাইগাররা।

আসন্ন ওয়ানডে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ১০ দলের অধিনায়কের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার একনজরে দেখা যাক-

সাকিব আল হাসান, বাংলাদেশ

ভূমিকা: অলরাউন্ডার

ক্রিকেটের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ১৭ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ১৪,২২২ রান এবং বল হাতে ৬৮১ উইকেটের মালিক। তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিদেশে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়ে অধিনায়ক ছিলেন সাকিব। ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লাল-সবুজরা প্রথম টেস্ট জিতেছে তার নেতৃত্বে। ২০১৯ সালের সবশেষ বিশ্বকাপে ঝলমলে ছিলেন সাকিব। আট ম্যাচে ৬০৬ রান করেন। গ্রুপ পর্বে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড গড়েন শচীন টেন্ডুলকারকে পেছনে ফেলে।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার :

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

সাকিব আল হাসান

২৪০

৭৩৮৪

৩৭.৬৭

৯/ ৫৫

৩০৮

 প্যাট কামিন্স, অস্ট্রেলিয়া

ভূমিকা: ফাস্ট বোলার

৩০ বছর বয়সী বোলার প্যাট কামিন্স। মাত্র ১৮ বছর বয়সে টেস্ট অভিষেক হয়। কিন্তু পিঠের ইনজুরির কারণে তার ক্যারিয়ার ছিল টানাপোড়েনের মধ্যে।

২০২১ সালে সেক্সটিং কেলেঙ্কারিতে টিম পেইনকে বরখাস্ত করা হলে টেস্ট দলের নেতৃত্ব পান কামিন্স। গত বছর অ্যারন ফিঞ্চ অবসর নিলে ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব দেওয়া হয় তাকে। তার সেরা ওয়ানডে ফিগার ৭০/৫, ওই বোলিং পারফরম্যান্সের পর মোহালিতে চার উইকেটে জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া।

আইপিএলে তিনটি ভিন্ন দলে খেলার অভিজ্ঞতা এই বিশ্বকাপে কামিন্সকে নিশ্চিতভাবে এগিয়ে রাখবে। তবে ওয়নাডেতে তার নেতৃত্ব একেবারে কাঁচা, মাত্র চার ম্যাচ।

মায়ের মৃত্যুতে এই বছরের শুরুতে ভারতে সিরিজ খেলতে পারেননি কামিন্স। কব্জির ইনজুরিতে সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচেও খেলেননি।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার :

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

প্যাট কামিন্স

৭৭

৩৬৪

১১.৩৭

---

১২৬

হাশমতউল্লাহ শহীদী, আফগানিস্তান

২০২১ সালের মেতে অধিনায়ক হন হাশমতউল্লাহ শহীদী, মাত্র ১৫ মাসের মাথায় আসগর আফগান দায়িত্ব হারালে। বাঁহাতি ব্যাটার হাশমতউল্লাহ তার দেশের প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরিয়ান। ২০১৮ সালে ভারতের বিপক্ষে অভিষেকে অপরাজিত ২০০ রান করেন। অবশ্য ওয়ানডেতে তার কোনও সেঞ্চুরি নেই। ২০১৮ সালে আবুধাবিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে তার অপরাজিত ৯৭ রান সর্বোচ্চ। তার ১৬ হাফ সেঞ্চুরির দুটি এসেছে সম্প্রতি শেষ হওয়া এশিয়া কাপে, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের বিপক্ষে।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার :

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

হাশমাতুল্লাহ শাহিদী

৬৪

১১৭৫

৩২.২৭

০/১৬

---

জস বাটলার, ইংল্যান্ড

ভূমিকা: উইকেটকিপার ব্যাটার

বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম পরিচ্ছন্ন শট খেলা ক্রিকেটার। গত বছর এউইন মর্গ্যানের অবসরের পর ইংল্যান্ডের সাদা বলের অধিনায়ক হন। অধিনায়ক হিসেবে প্রথম বড় টুর্নামেন্ট টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ে নেতৃত্ব দেন। ২০১৫ বিশ্বকাপের সহঅধিনায়ক বাটলার। ওই আসরে বাজে সময় কাটানোর চার বছর পর গতবার ফাইনালে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। বেন স্টোকসের সঙ্গে শক্ত জুটি গড়ার পাশাপাশি ৬০ বলে ৫৯ রান করেন। সুপার ওভারেও রানের পাল্লা ভারি করেন এবং মার্টিন গাপটিলকে রানআউট করে বিশ্বজয়ে অবদান রাখেন।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার

ক্যাচ: ২১১, স্টাম্পিং: ৩৫

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

জস বাটলার

১৬৯

৪৮২৩

৪১.৫৭

১১/ ২৫

---

রোহিত শর্মা, ভারত

ভূমিকা: ব্যাটার

২০০৭ সালে ওয়ানডেতে অভিষেক হয় রোহিত শর্মার। ২০১৭ সালে প্রথম দফায় এই ফরম্যাটের নেতৃত্ব পান এবং ২০২২ সালে বিরাট কোহলির স্থায়ী উত্তরসূরি হন।

৩৪ ম্যাচে দায়িত্ব নিয়ে জিতেছেন ২৪টি। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কাকে ফাইনালে হারিয়ে এশিয়া কাপও জেতে ভারত। ওয়ানডে ক্রিকেটে একমাত্র তিনিই তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি মেরেছেন। ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০৮, ২০১৩ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২০৯ এবং ২০১৪ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বকালের সর্বোচ্চ ২৬৪ রান করেন। টেস্ট ক্রিকেটেও ডাবল সেঞ্চুরি আছে রোহিতের। ২০১৯ বিশ্বাকপে পাঁচটি সেঞ্চুরি মারেন, ১৪০ রানের ইনিংস খেলেন পাকিস্তানের বিপক্ষে। কিন্তু সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হার এড়াতে ব্যর্থ হন।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

রোহিত শর্মা

২৫১

 

 

১০,১১২

 

 

৪৮.৮৫

 

 

৩০/৫২

---

 টেম্বা বাভুমা, দক্ষিণ আফ্রিকা

ভূমিকা: ব্যাটার

দক্ষিণ আফ্রিকার কৃষ্ণাঙ্গ ক্রিকেটারদের আলোকবর্তিকা বলা হয় টেম্বা বাভুমাকে। প্রোটিয়া পুরুষ দলে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন তিনি। এছাড়া প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ আফ্রিকান ক্রিকেটার হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি মারেন।

২০১৪ সালের শেষ দিকে জাতীয় দলে অভিষেক হয় বাভুমার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের দলে জায়গা পান। ২০১৫ সালের মাঝামাঝি সময়ে যখন বাংলাদেশে দ্বিতীয়বার সুযোগ হলো, তখন হাফ সেঞ্চুরিতে বিমোহিত করেন।

২০২১ সালের মার্চে বাভুমা আবারও সংবাদের শিরোনামে। কুইন্টন ডি কক সরে দাঁড়ানোর কারণে দক্ষিণ আফ্রিকার সীমিত ওভার ক্রিকেটের অধিনায়কও হন।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

টেম্বা বাভুমা

৩০

১৩৬৭

৫৪.৬৮

৫/ ৪

---

স্কট এডওয়ার্ডস, নেদারল্যান্ডস

ভূমিকা: উইকেটকিপার ব্যাটার

টোঙ্গায় জন্ম নেওয়া এডওয়ার্ডস বেড়ে উঠেছেন অস্ট্রেলিয়ায়। নানীর মাধ্যমে ডাচ খেলোয়াড় হিসেবে তার আবির্ভাব। অস্ট্রেলিয়ায় সেমিপ্রো ক্লাব ক্রিকেট দিয়ে তার শুরু। ২০১৮ সালে ডাচ ক্রিকেটে অভিষেক হয়। চার বছর পর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হোম সিরিজে টানা তিনটি হাফ সেঞ্চুরি করেন। এই বছর জুনে বিশ্বকাপের বাছাইয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। জিম্বাবুয়েতে ওই প্রতিযোগিতায় চারটি হাফ সেঞ্চুরি ছিল তার। এর মধ্যে দুইবারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হাই স্কোরিং টাই ম্যাচে ৬৭ রান করেন। ম্যাচটি সুপার ওভারে জিতে যায় ডাচরা।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার

ক্যাচ: ৩৬, স্টাম্পিং: ৬

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

স্কট এডওয়ার্ডস

৩৮

১২১২

৪০.৪০

০/১৩

---

কেন উইলিয়ামসন, নিউজিল্যান্ড

ভূমিকা: ব্যাটার

নিউজিল্যান্ডের অন্যতম সেরা ব্যাটার হিসেবে বিবেচিত উইলিয়ামসন। ২০১০ সালে অভিষেকের পর থেকে দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ তিনি। তাকে এতটাই গুরুত্ব দেওয়া হয় যে মার্চে এসিএল ইনজুরিতে পড়লেও ফিটনেস ফেরাতে যথাসম্ভব সময় দেওয়া হয়েছে। ২০১৯ বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড় উইলিয়ামসন। ওইবার ইংল্যান্ড বিতর্কিত ফাইনালে জিতলেও ঠাণ্ডা মাথায় দলের পরাজয় সামাল দেন তিনি। ছয় মাস চোটের সঙ্গে লড়াইয়ের পর পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে ফেরেন উইলিয়ামসন। খেলেছেন দ্বিতীয় ম্যাচেও। তবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের প্রথম ম্যাচে দেখা যাবে না তাকে।

 

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

কেন উইলিয়ামসন

১৬১

 

৬৫৫৪

৪৭.৮৩

১৩/ ৪২

---

বাবর আজম, পাকিস্তান

ভূমিকা: ব্যাটার

বিশ্বের শীর্ষ ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংধারী ব্যাটার। তিন ফরম্যাটেই অধিনায়ক বাবর। আন্তর্জাতিক রান সাড়ে ১২ হাজারের বেশি। টি-টোয়েন্টিতেও তার ব্যাটে রানের ফোয়ারা ওঠে। এই ফরম্যাটে তার ১২২ রান সর্বোচ্চ। ২০১৯ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে বাদ পড়লেও বাবর দ্রুততম পাকিস্তানি ব্যাটার হিসেবে ৩ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন। বাংলাদেশের বিপক্ষে তিনি বিশ্বকাপে জাভেদ মিয়াঁদাদের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ভাঙেন। আট ইনিংসে করেন ৪৭৪ রান। এই বছর মেতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মাত্র ৯৭ ইনিংসে ৫ হাজার ওয়ানডে রান করেন, যা সবচেয়ে দ্রুততম। সম্প্রতি এশিয়া কাপে নেপালের বিপক্ষে ইনিংসের হিসাবে দ্রুততম ১৯ ওয়ানডে সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েন বাবর।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার :

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

বাবর আজম

১০৮

 

৫৪০৯

৫৮.১৬

১৯/ ২৮

---

দাসুন শানাকা, শ্রীলঙ্কা

ভূমিকা: অলরাউন্ডার

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রাখেন শানাকা। তারপর ওয়ানডেতে নাম লেখেন। পাঁচ বছরে মাত্র ছয়টি টেস্ট খেলে আর লঙ্গার ভার্সনে দেখা যায়নি।

২০১৬ সালে ওয়ানডে অভিষেক স্মরণীয় করে রাখেন শানাকা। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৪২ রান করার পাশাপাশি ৫ উইকেট নেন ৪৩ রান খরচায়, যা এখনও তার ক্যারিয়ার সেরা। তবে এই বছর জুনে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ভুলে যাওয়ার মতো পারফর্ম করেছেন শানাকা। মাত্র ১২ রান করেছেন, উইকেট পাঁচটি। ২০২১ সাল থেকে অধিনায়কত্ব করছেন শানাকা। সম্প্রতি এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের কাছে ৫০ রানে অলআউট হওয়া শ্রীলঙ্কার মনোবল চাঙ্গা রাখা তার চ্যালেঞ্জিং কাজ।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্যারিয়ার :

নাম

ম্যাচ

রান

গড়

১০০/৫০

উইকেট

দাসুন সানাকা

৬৭

১২০৪

২২.২৯

২/৩

২৭

Link copied!