• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

গাছ কেটে সড়কের উন্নয়ন চান না ধানমন্ডিবাসী


জাহিদ রাকিব
প্রকাশিত: মে ৮, ২০২৩, ০৯:৫৯ পিএম
গাছ কেটে সড়কের উন্নয়ন চান না ধানমন্ডিবাসী

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় সৌন্দর্য বাড়াতে ধানমন্ডির সাতমসজিদ সড়কের ডিভাইডার তৈরি করতে বিভিন্ন সড়কদ্বীপ ও সড়ক ডিভাইডার ভেঙে নতুন করে বানাতে গিয়ে পুরোনো গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। সড়ক সংস্কার করতে গিয়ে গাছ কাটার বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি স্থানীয় বাসিন্দারা। এলাকাবাসীর দাবি গাছ কেটে সড়কের উন্নয়নের প্রয়োজন নেই।  

সরেজমিনে ঘুরে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গাছ কাটার কয়েক দিন পর থেকে স্থানীয় বাসিন্দা ও পরিবেশ আন্দোলনকর্মীরা তার প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন। গত জানুয়ারিতে রাজধানীর সাতমসজিদ সড়কে গাছ কেটেছিল সংস্থাটি। তখন এ নিয়ে নানা মহলের সমালোচনার মুখে গাছ কাটা বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু হঠাৎ করে আবার শুরু হয় গাছ কাটা।

ডিএসসিসি সূত্রে জানা যায়, সড়কের সৌন্দর্যবর্ধনে ৯ কোটি ৬২ লাখ টাকার একটি কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এর অংশ হিসেবে ধানমন্ডির সাতমসজিদ রোডেও সড়ক ডিভাইডারের উন্নয়নকাজ হচ্ছে। এই কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কিছু জায়গায় অল্প কিছু গাছ কাটা হচ্ছে।

গাছ কাটা বন্ধে এক পথচারী সংবাদ প্রকাশকে বলেন, “প্রচণ্ড গরমে জনজীবনে নাভিশ্বাস উঠেছে। এরপরও সিটি করপোরেশন গাছ কেটে উন্নয়নকাজ করছে। গাছ না কেটে উন্নয়নকাজ করার পরামর্শ দেন তিনি। পাশাপাশি সরকার কোনো রাজনৈতিক বা সাংস্কৃতিক চর্চার কারণে গাছ কাটছে এটা স্পষ্ট হওয়া দরকার। যারা নগরকে ভালোবাসে, দেশকে ধারণ করে তারা দেশের ক্ষতি চান না।”

ধানমন্ডি এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা মোবারক হোসেন সংবাদ প্রকাশকে বলেন, “আবাহনী মাঠের সামনে থেকে ধানমন্ডি ১৫ নম্বর পর্যন্ত ডিভাইডারে গাছ লাগানোর জন্য যেটুকু জায়গা রাখা হয়েছে, তাতে বড় আকারের কোনো গাছের বেড়ে ওঠা সম্ভব নয়।”

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর, অঞ্চল ও পরিকল্পনা বিভাগের অধ্যাপক আদিল মোহাম্মদ খান সংবাদ প্রকাশকে বলেন, “ঢাকা শহরে এভাবে সড়ক ডিভাইডার ভেঙে নতুন করে করা কর্তৃপক্ষের একধরনের শৌখিনতায় পরিণত হয়েছে। আদৌ এই সড়ক ডিভাইডার ভেঙে ফেলার প্রয়োজন আছে কি না, তা দেখতে হবে।”

আদিল মোহাম্মদ খান আরও বলেন, “দীর্ঘদিন ধরে এই বিভাজকের ওপরে গাছ ছিল। একধরনের সবুজায়ন তৈরি হয়েছে। এই প্রকল্প প্রকৌশলীরা বাস্তবায়ন করছেন। অথচ এটা নগর পরিকল্পনাবিদের কাজ। যদি সৌন্দর্যবর্ধন করতেই হয়, তবে গাছ কেন কাটতে হবে?”

গাছ কাটার বিষয়ে ডিএসসিসির নির্বাহী প্রকৌশলী সালেহ আহমেদ সংবাদ প্রকাশকে বলেন, “গাছ কেটে আরও সুন্দর করে সড়ক ডিভাইডার তৈরি করা হবে। আগের চেয়ে সুন্দর ডিভাইডার তৈরি হচ্ছে। এতে রাস্তা বড় হচ্ছে। ঠিকাদারকে গাছা কাটার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। গাছ না কাটলে (ডিভাইডার) কীভাবে তৈরি করা হবে? গাছ যেগুলো কাটা হচ্ছে তার পরিবর্তে আরও ভালো প্রজাতির গাছ লাগানো হবে।”

Link copied!