• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

অনাস্থা ভোটে পদ হারালেন যুক্তরাষ্ট্রের স্পিকার


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: অক্টোবর ৪, ২০২৩, ০৯:২২ এএম
অনাস্থা ভোটে পদ হারালেন যুক্তরাষ্ট্রের স্পিকার

মার্কিন রাজনীতির ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনো স্পিকার অনাস্থা ভোটে পদচ্যুত হয়েছেন। নিজ দলের বিদ্রোহী আইনপ্রণেতাদের অনাস্থা ভোটে পদ হারিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থি। 

ক্যালিফোর্নিয়া থেকে নির্বাচিত কেভিন ম্যাকার্থি অনাস্থা ভোটে ২১৬-২১০ ব্যবধানে হেরে সংসদের নিম্নকক্ষ কংগ্রেসে রিপাবলিকানদের নেতৃত্ব ও স্পিকারের দায়িত্ব হারিয়েছেন।

গত শনিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) ‘মার্কিন সরকারকে শাটডাউন থেকে বাঁচাতে’ ডেমোক্র্যাটসদের নিয়ন্ত্রণাধীন সিনেটের সঙ্গে একটি চুক্তি করেন রিপাবলিকান নেতা ও স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থি।

আর এই চুক্তি করে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির নেতা ও প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসনকে ‘শাটডাউনের’ কবল থেকে বাঁচিয়ে দেওয়ায় কেভিন ম্যাকার্থির নিজ দলের কয়েকজন সদস্য ক্ষুব্ধ হন। আর সেই ক্ষোভ থেকেই তার বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোট উত্থাপন করেন তারা।

গত সোমবার (২ অক্টোবর) সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আস্থাভাজন ফ্লোরিডার কংগ্রেসম্যান ম্যাট গায়েটস এই অনাস্থা ভোট প্রস্তাব করেন। তিনি অভিযোগ করেন, ইউক্রেন যুদ্ধে অর্থায়ন অব্যাহত রাখতে হোয়াইট হাউসের সঙ্গে স্পিকার ম্যাকার্থি গোপন চুক্তি করেছেন।

স্পিকার পদ হারানোর পর ম্যাকার্থি জানিয়েছেন, তিনি পুনরায় স্পিকার হতে কংগ্রেসের ভোটাভুটিতে অংশ নেবেন না। এ ছাড়া যে ম্যাট গায়েটস তার বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোট এনেছেন—তার সমালোচনা করেছেন তিনি। ম্যাকার্থি দাবি করেছেন, ম্যাট গায়েটস মানুষের নজর পাওয়ার জন্য ও ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে এটি করেছেন। এর সঙ্গে অর্থায়নের কোনো সম্পর্ক নেই।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে ১৫ রাউন্ড ভোটাভুটির পর স্পিকার হয়েছিলেন কেভিন ম্যাকার্থি। কিন্তু নিজ দলের অন্তর্দ্বন্দ্বে আবার এই পদ হারিয়েছেন তিনি।

অবশ্য মঙ্গলবারের (৩ অক্টোবর) এ ভোটে নিজ দল রিপাবলিকান পার্টির মাত্র ৮ জন সদস্য ম্যাকার্থির বিরুদ্ধে ভোট দেন। বাকি ২১০ জন তার পক্ষে ভোট দেন। কিন্তু বিরোধী দল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সদস্যরা তার বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন। ফলে অনেকটা আকস্মিকভাবে ম্যাকার্থি পদচ্যুত হয়েছেন।

কেভিন ম্যাকার্থি দায়িত্ব হারানোয় এখন তার জায়গায় অস্থায়ীভাবে স্পিকারের দায়িত্ব পালন করবেন প্যাটট্রিক ম্যাকহেনরি। তবে অস্থায়ী এ স্পিকার শুধু প্রশাসনিক কাজগুলো করবেন নাকি পুরো ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারবেন, সে বিষয়টি নিশ্চিত নয়।

Link copied!