• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪৫

যৌন নির্যাতনের সত্যতায় যে শাস্তি পেলেন ট্রাম্প


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মে ১০, ২০২৩, ১১:৫১ এএম
যৌন নির্যাতনের সত্যতায় যে শাস্তি পেলেন ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের ভেতরে এক নারীকে যৌন নির্যাতনের প্রমাণ পেয়েছেন নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের নির্বাহী আদালতের ৯ সদস্যের জুরি। ১৯৯০ দশকের মাঝামাঝি সময়ে ম্যাগাজিনের লেখিকা ই জিন ক্যারলকে নির্যাতন করেন ট্রাম্প।

বুধবার (১০ মে) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি ও আল-জাজিরা পৃথক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার গত সাতদিনের বিচার প্রক্রিয়া শেষে নয় সদস্যের জুরি জানিয়েছে সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ক্যারলকে ধর্ষণ করেননি। তারা ট্রাম্পকে যৌন নির্যাতন এবং মানহানির জন্য দায়ী করেছেন।

যদিও ই জিন ক্যারল দাবি করেছিলেন, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট তাকে ধর্ষণ করেছিলেন। তবে এর কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি।

যৌন হয়রানি ও ধর্ষণের অভিযোগ আনার পর ট্রাম্প ২০১৯ সালে ক্যারলকে ‘মিথ্যাবাদী’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন। এতে ওই নারীর মানহানি হয়েছে বলেও জানিয়েছেন জুরি। আর এসব অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় ক্যারলকে ৫০ লাখ ডলার জরিমানা দেওয়ার রায় দেওয়া হয়। এ জরিমানার অর্থ ট্রাম্পের জন্য খুব বেশি কিছু না হলেও, নারীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার বিষয়টি তার জন্য আইনগতভাবে একটি বড় ধাক্কাই বলা যায়।

যেহেতু এটি একটি দেওয়ানী মামলা তাই ট্রাম্পকে কোনো ফৌজদারি শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে না।

তবে ট্রাম্পকে এখনই জরিমানার অর্থ দিতে হবে না। কারণ এ রায়ের বিরুদ্ধে তিনি আপিল করতে পারবেন। আলোচিত ও সমালোচিত সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মুখপাত্র স্টেভেন চিউং রায় ঘোষণার পরপরই জানিয়েছেন, তারা এর বিরুদ্ধে আপিল করবেন।

জুরি এ রায় দেওয়ার পর হাসিমুখে আদালত থেকে বের হয়ে যান অভিযোগকারী ক্যারল। ওই সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা না বললেও পরবর্তীতে তিনি জানান, ‘বিশ্ব এখন সত্যটা জানল।’

রায়ের পর ট্রাম্প সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক বিবৃতি দিয়ে আক্ষেপ করে বলেছেন, তিনি ক্যারলকে জানেন না। রায়কে ‘অসম্মানজনক’ এবং ‘সর্বকালের সেরা প্রতারণার শিকার’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

Link copied!