• ঢাকা
  • শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৩ মুহররম ১৪৪৫

পরিবারের সম্মানহানি, মেয়ের জামাইকে পিটিয়ে হত্যা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মে ৬, ২০২২, ০৩:৪১ পিএম
পরিবারের সম্মানহানি, মেয়ের জামাইকে পিটিয়ে হত্যা
ছবি : সংগৃহীত

 প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে এক দলিত হিন্দু তরুণকে বিয়ে করেন মুসলিম পরিবারের এক মেয়ে। বিয়ের আগে তিনি ধর্ম পরিবর্তন করে হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেন। বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি মেয়েটির পরিবার। পরিবারের সম্মানহানির অভিযোগ এনে মেয়েটির দুই ভাই ওই তরুণকে পিটিয়ে হত্যা করেছে।

ঘটনা ঘটেছে ভারতের হায়দরাবাদের সরুনগরে। নিহত ওই তরুণের নাম বিল্লামপুরাম নাগরাজু।

হত্যার ঘটনায় বিচার দাবি করেছেন নাগরাজুর মা। গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় ভেঙে পড়েন তিনি। জঘন্য হত্যার ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানান তিনি।

তেলেঙ্গানা পুলিশ বলছে, কলেজে পড়ার সময় বিল্লামপুরাম নাগরাজু ও সৈয়দ অশরিন সুলতানার মধ্যে পরিচয় হয়। পরে তারা প্রেমের সম্পর্কে জড়ান। চলতি বছরের জানুয়ারিতে তারা বিয়ে করেন। বিয়ের আগে সুলতানা ধর্ম পরিবর্তন করেন। মুসলিম ধর্ম ছেড়ে হিন্দুধর্ম গ্রহণ করে নিজের নাম রাখেন পল্লবী। সম্প্রতি তারা ঘুরতে যাওয়ার সময় পল্লবীর দুই ভাই হামলা চালান।

পুলিশ কমিশনার শ্রীধর রেড্ডি রিপাবলিক টিভিকে বলেন, নাগরাজু স্ত্রীকে নিয়ে বাইকে করে ঘুরতে যাচ্ছিলেন। তখন তার ওপর হামলা করা হয়। এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন মেয়ের দুই ভাই। বোনের বিয়ে সম্পর্কে শুরুর দিকে জানতেন না তার ভাই। জানার পর বোনের স্বামীকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়।

শ্রীধর রেড্ডি আরও বলেন, হামলাকারীরা পালিয়ে গেছেন। পরে তাদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের আদালতে পাঠানো হবে।

রিপাবলিক টিভি ঘটনার সময়ের কিছু সিসিটিভি ফুটেজ পেয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, সরুনগরে নাগরাজুকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। প্রথমে তাকে দুই যুবক লাঞ্ছিত করেন। তারা দুইজন নাগরাজুর স্ত্রীর ভাই। তারা দুইজন মিলে ব্যস্ত রাস্তার মাঝখানে নাগরাজুকে রড ও ছুরি দিয়ে আঘাত করেন। পাশ দিয়ে অনেক গাড়ি আসা-যাওয়া করছিল। কেউ তাকে রক্ষায় এগিয়ে আসেনি।

পুলিশ জানিয়েছে, হামলায় ঘটনাস্থলেই মারা যান নাগরাজু। পল্লবীর ভাইদের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Link copied!