• ঢাকা
  • শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১, ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫
২ কোটি টাকার সোনা জব্দ

সোনা চোরাচালান মামলায় কাউন্সিলর গ্রেপ্তার


চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ২০, ২০২১, ০৫:৪১ পিএম
সোনা চোরাচালান মামলায় কাউন্সিলর গ্রেপ্তার

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় প্রায় দুই কোটি টাকার সোনা জব্দের মামলায় দর্শনা পৌর কাউন্সিলর বিল্লাল হোসেনকে (৩২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২০ আগস্ট) গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর কবির।

এর আগে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) ভোরে অভিযান চালিয়ে জীবননগর উপজেলার নারায়নপুর গ্রামে শ্বশুরবাড়ি থেকে বিল্লাল হোসেনকে গ্রেপ্তার করে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বুধবার (১৮ আগস্ট) দুপুর সাড়ে তিনটার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোনা চোরাচালানিবিরোধী অভিযান চালায়। এ সময় তাদের ধাওয়া করে কুষ্টিয়া-আলমডাঙ্গা সড়কের বন্ডবিল গেট এলাকায় একটি প্রাইভেট কারের গতিরোধ করে। প্রাইভেট কার থেকে আটক করা হয় দর্শনা পৌর এলাকার শ্যামপুরের নুর ইসলামের ছেলে বাপ্পী (২৮), চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের বনানীপাড়ার রিপন হোসেনের ছেলে সম্রাট হোসেন (৩৫) ও মাদারীপুর জেলার জালালপুরের বাবু হাওলাদারের ছেলে সুমন হাওলাদালকে (৩২)। এরপর প্রাইভেট কারটি তল্লাশি করে সিটের নিচ থেকে তুলা ও স্কচ টেপ দিয়ে মোড়ানো বিশেষ কায়দায় রাখা স্বর্ণালংকারের ৬টি বান্ডেল উদ্ধার করে পুলিশ। প্রায় দুই কোটি টাকা মূল্যের আড়াই কেজি স্বর্ণালংকারসহ তাদের কাছ থেকে ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ও নগদ টাকাও জব্দ করা হয়।

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা স্বর্ণালংকার চেরাচালানিদের হোতা দর্শনা পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিল্লাল হোসেনসহ আরও অনেকের নাম প্রকাশ করে। বিল্লাল হোসেন দর্শনার সীমান্তবর্তী শ্যামপুরের নুর ইসলামের ছেলে। আটক বাপ্পী কাউন্সিলর বিল্লালের সহোদর। এদিকে স্বর্ণের চালান পুলিশের হাতে আটকের খবর পেয়ে বিল্লালসহ দর্শনার বেশ কয়েকজন গা ঢাকা দেন।

পৌর কাউন্সিলর বিল্লাল হোসেনসহ গ্রেপ্তারকৃত চারজনকে পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হবে বলেও জানান ওসি আলমগীর কবির।

দর্শনা পৌরসভার মেয়র মতিয়ার রহমানও কাউন্সিলর বিল্লাল হোসেনকে সোনা চোরাচালান মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন।

Link copied!