• ঢাকা
  • শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

নার্সকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা, থানায় মামলা


রাজশাহী প্রতিনিধি
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২, ০৯:২২ পিএম
নার্সকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা, থানায় মামলা

রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত অবস্থায় এক সিনিয়র স্টাফ নার্সকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা চেষ্টা করেছে এক যুবক। গুরুতর আহত নার্সের নাম শিলা প্রামানিক (৩০)। তিনি উপজেলার পোল্লাকুড়ি গ্রামের রঘুনাথ প্রামানিকের মেয়ে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র স্টাফ নার্স।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার মো. রাশেদুল ইসলাম বাদী হয়ে মেহেদী (২১) নামের এক যুবককে আসামি করে সন্ধ্যার পর মামলা করেছেন। অভিযুক্ত মেহেদী উপজেলা সইপাড়া গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নার্স শিলা নতুন বিল্ডিংয়ের দোতালায় কাজ করছিলেন। হঠাৎ পেছন থেকে মাস্ক পরা মেহেদী নামের এক যুবক নার্স শিলাকে উপর্যুপুরি হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে। শিলা চিৎকার করে সহযোগীদের ডাকতে থাকেন। তারা এগিয়ে আসলে হামলাকারী যুবক মেহেদী তার হাতে থাকা হাতুড়িটি ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে এসআই ধীমান চন্দ্র বর্মন এক দল পুলিশ এনে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

কী কারণে তার ওপর এমন হামলা হয়েছে জানতে চাইলে শিলা বলেন, “এ হাসপাতালে চাকরি করা অবস্থায় সেবা দিতে গিয়ে কারো সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেননি। কে, কী কারণে তার ওপর হামলা করেছে সে বিষয়ে তিনি কিছুই বলতে পারেননি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে আহত শিলার সার্ভিস স্ট্যাটাস খুবই সন্তোষজনক। তার বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।”

জেলা সিভিল সার্জন ডা. আবু সাইদ মোহাম্মদ ফারুক বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নার্সের ওপর হামলার ঘটনায় হামলাকারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ সুপারকে বলা হয়েছে। ঘটনা তদন্তের জন্য টিএসওকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মোহনপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহা. তৌহিদুল ইসলাম বলেন, নার্সের ওপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। হত্যার চেষ্টা কাজে ব্যবহৃত হাতুড়ি উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে আসামি মেহেদীকে গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Link copied!